আউয়াল দম্পতির বিরুদ্ধে এবার অবৈধ সম্পদের মামলা দুদকের

পিরোজপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএমএ আউয়াল ও তার স্ত্রী লায়লা পারভীনের বিরুদ্ধে ৪৪ কোটি টাকার ‘অবৈধ সম্পদ অর্জনের’ অভিযোগ আলাদা মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ দুদকের উপ-পরিচালক মো. আলী আকবর মামলা দুটি করেন।

দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানান, একেএমএ আউয়ালের বিরুদ্ধে মামলায় ৩৩ কোটি টাকার বেশি অবৈধ সম্পদ এবং তার স্ত্রীর লায়লা পারভীনের নামে আলদা মামলায় প্রায় ১১ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। এর আগে আউয়ালের বিরুদ্ধে জেলার নাজিরপুর থানার সামনে ও উপজেলা সদরের ভূমি অফিসের পেছনের সরকারি জমি দখল করার অভিযোগে গত ৩০ ডিসেম্বর তিনটি মামলা করে দুদক। এসব মামলার একটিতে তার স্ত্রী লায়লা পারভীনকেও আসামি করা হয়।

ওই মামলাগুলোতে হাইকোর্ট থেকে কিছুদিন জামিনে থাকার পর গত ৩ মার্চ আউয়াল ও তার স্ত্রী লায়লা পারভীন পিরোজপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিনের আবেদন করেন। ওইদিন সকালে শুনানি শেষে জামিন আবেদন খারিজ করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক মো. আবদুল মান্নান। ওই আদেশের পর আউয়ালের কর্মী-সমর্থকেরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান। সেদিনই বিচারক আবদুল মান্নানের বদলি আদেশ আসে এবং বিকালে ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ নাহিদ নাসরিন আওয়াল দম্পতির জামিন মঞ্জুর করেন। আউয়াল ২০০৮ ও ২০১৪ সালে পরপর দুইবার পিরোজপুর-১ (সদর-নাজিরপুর-নেছারাবাদ) আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে সংসদ সদস্য হন।