গাড়িতে আগুন

বিএনপির তিনজন গ্রেফতার

ঢাকা-১৮ আসনে উপনির্বাচনের দিন রাজধানীতে বাসে আগুন দেয়ার ঘটনায় বিএনপির সহযোগী তিন নেতাকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেফতার তিনজন বিএনপির সহযোগী সংগঠন ছাত্রদল ও যুবদলের নেতাকর্মী। তারা হলো- পল্টন থানা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী রেজাউল হক বাবু ওরফে জিম বাবু (২৮), পল্টন থানা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক লিয়ন হক (৩০) এবং যুবদলকর্মী আজাদ (২৮)। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে পল্টনে গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় শনাক্ত করে শনিবার (২১ নভেম্বর) ভোরে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার বলেন, গ্রেফতার জিম বাবু গাড়িতে পেট্রোল ঢেলে দেয় এবং আরেকজন আগুন দেয়। এখানে ইমতিয়াজ নামে আরেকজন যুবদলকর্মী ছিল, তাকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এই ঘটনায় মামলা হওয়ার পর বিভিন্ন ভিডিও এবং সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে কয়েকজনকে শনাক্ত করার কথা জানিয়েছে পুলিশ। অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হাফিজ বলেন, তারা (বাবু, লিয়ন, আজাদ) একটি মিছিল থেকে বের হয়ে গাড়ি পুড়িয়েছিল। এর পেছনে কারা আছে, কী উদ্দেশ্যে তার করেছিল, সে ব্যাপারে তাদের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) একেএম হাফিজ আক্তার জানান, ১২ নভেম্বর পল্টন, মতিঝিলসহ বিভিন্ন থানা ১১টি গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিভিন্ন থানায় ১৬টি মামলা করা হয়। পল্টন ও মতিঝিল থানায় করা চারটি মামলা তদন্ত করছে ডিবির মতিঝিল বিভাগ। তদন্তে স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীদের ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে অগ্নিসংযোগকারীদের তিনজনকে শনাক্ত করা হয়। ১২ নভেম্বর দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপি পার্টি অফিসের সামনে আকস্মিক ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কতিপয় নেতাকর্মী মিছিল বের করে। একপর্যায়ে মিছিলটি বিএনপি পার্টি অফিসের সামনে এসে উশৃঙ্খল হয়ে পড়ে। প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীদের ধারণকৃত ছবি ও ভিডিও ফুটেজ এবং সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখা যায়, মিছিল থেকে গ্রেফতারকৃতরা তাদের সহযোগীদের সহায়তায় পল্টন বিএনপি পার্টি অফিসের বিপরীতে অবস্থিত কর অঞ্চল-১০ এর সামনের থাকা সরকারি স্টাফ বাসে অগ্নিসংযোগ করে।