বিনামূল্যে চিকিৎসায় জেক্সকা হাসপাতাল চালু হলো খুলনায়

image

আত্ম মানবতার সেবায় দরিদ্র ও অসহায় মানুষের বিনামূল্যে চিকৎসা সেবার জন্য খুলনার সোনাডাঙ্গা উপজেলায় ঝিনাইদহ এক্সক্যাডেট এসোসিয়েশন(জেক্সকা) ক্লিনিককে পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল হিসেবে চালু করা হয়েছে। সোনাডাঙ্গার এমএবারির রোডের আলীর মোড়ে অবস্থিত জেক্সকা হেলথ কেয়ার ক্লিনিককে পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল ঘোষনা দিয়ে ১৯ এপ্রিল শুক্রবার এর ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধণ করেন এসোসিয়েশনের সভাপতি ও নৌ পুলিশের ডিআইজি শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসান। অনাড়ম্বর এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসা জেক্সকা হেলথ কেয়ার নামে পূণাঙ্গ হাসপাতালের কার্যক্রম চালুর উদ্যোগ নেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে অণ্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার খন্দকার লুৎফুল কবীর, খুলনা জেলার পুলিশ সুপার, খুলনা প্রেস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট, জেক্সকার সদস্যবৃন্দ, খুলনার সুশিল সমাজের ব্যক্তিবর্গ, ও সর্বস্ত্ররের জনসাধারন উপস্থিত ছিলেন। ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজের প্রাক্তন ছাত্ররা সামাজিক দায়বদ্ধতায় জেক্সকা হেলথ কেয়ার ক্লিনিক চালুর মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা চালু করে। চিকিৎসা সেবা ছাড়াও ১৯৯৪ সাল থেকে খুলনা শহরে সমাজের দরিদ্র এবং অবহেলিত জনগোষ্ঠির জন্য যাকাত, লিল্লাহ্ আর দান-এর অর্থ সংগ্রহ করে সামাজিক কর্মকান্ড করা হয়। ২০০৮ সালে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে ক্রয়কৃত কেডিএ ৫৫ এম এ বারি সড়কে ক্লিনিক চালু করে জেক্সকা কেন্দ্রীয় কমিটি।

জেক্সকা হেলথকেয়ার হাসপাতালের কমপ্লেক্স এর ভিত্তি প্রস্তুর উদ্বোধন কালে ডিআইজি শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসান বলেন জেক্সকা হেলথ কেয়ার এ কমপ্লেক্সটি ক্লিনিক হিসেবে পরিচিত ছিলো। এ সেবামূলক প্রতিষ্ঠানটি বিনামূল্যে সর্ব স্তরের মানুষের মাঝে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে আসছিলো। এই ক্লিনিকের কার্যক্রমকে আরও বেগবান ও বৃহৎ আকারে স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের লক্ষ্যে হাসপাতালে রূপান্তর করা হলো। নির্মিত হাসপাতাল থেকে সম্পুর্ণ সমাজের সুবিধা বঞ্চিত মানুষ, পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী, স্বামী পরিত্যাক্তা, বিধাব, ছিন্নমূল শিশুদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে । সেবাধর্মী এ প্রতিষ্ঠানটি থেকে বেশি উপকৃত হবে বলে সমাজের দুস্থ এবং অসহায় পরিবারগুলো। এতোদিন জেক্সা হেলথকেয়ার একটি ক্লিনিক হিসেবে এ অঞ্চলের মানুষের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিয়েছে। এখানে সার্বক্ষনিক চিকিৎসক এবং নার্সরা সাধারণ মানুষের চিকিৎসা সেবা দিবে। ডিআইজি মারুফ হাসান বলেন, এখানে যারা চিকিৎসা নিতে আসবে তারা চিকিৎসকদের আন্তরিকতার চিকিৎসা সেবা পাবেন। এটি একটি মডেল হাসপাতাল হবে এবং আধুনিক চিকিৎসা সরঞ্জাম ও দক্ষ ডাক্তার দ্বারা পরিচালিত হবে। হাসপাতালটি ডাক্তার দেখানো, ঔষধ বিতরণ, পরিক্ষা-নীরিক্ষা, পরিচর্চাসহ অন্যান্য সব সেবাই বিনামূল্যে প্রদান করবে।