বেইলি সেতু বিধ্বস্ত এক মাস! যোগাযোগ বিচ্ছন্ন

image

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) : এক পাশে হেলে পড়া বিধ্বস্ত সেতু-সংবাদ

হাজীগঞ্জ-ফরিদগঞ্জ সড়কের গুরুত্বপূর্ণ কামতা বেইলী সেতু গত এক মাস ধরে হেলে পড়ায় দুই উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। প্রতিদিনই অনেক যাত্রীসাধারণসহ শত শত যানবাহন চলাচল করতে গিয়ে দুই পাড়ে আটকা পড়েন।

আর এতে করে দুই উপজেলার সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাজীগঞ্জের সেন্দ্রা থেকে ফরিদগঞ্জের কামতার সঙ্গে দুই হাইওয়ে সড়কের চলাচলের প্রধান মাধ্যম হচ্ছে এ সড়কটির সেতু।

গত ৪ বছর ধরে ব্রিজ নির্মাণ করতে গিয়ে নানা সমস্যা দেখা দেয়। বিশেষ করে কামতা বাজারের ব্যবসায়ীদের দাবিতে পূর্বের ব্রিজ ভেঙ্গে ওই স্থানে নতুন সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হয়। এ সুযোগে ঠিকাদার নিজ ইচ্ছামতো কাজ শুরু করতে গিয়ে করেন ঘাফিলতি। যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য পাশেই স্থাপন করা হয় পুরানো একটি বেইলী সেতু। যার শুরু থেকে পাটাতন থেকে শুরু করে পাশের এঙ্গেলগুলো ভাঙ্গা। আর এতে করে বর্ষা ও বৃষ্টির পানি চাপ দেয়া শুরু করলে বেইলী সেতুটি আস্তে আস্তে হেলে যায়। আর এতে করে মিনি ট্রাক, মাইক্র, সিএনজি ও অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে যে পরিশ্চিতি একটি মোটরসাইকেল যাওয়াত দূরের কথা মানুষ হেটে চলাচল করার কোন সুযোগ নেই। বেইলী সেতুর মতো গুরুত্বপূর্ণ সড়কটির দুই পাশও ভেঙ্গে গেছে। দুই পাশে মাটি তুলে বরং যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও দুর্ভোগ করে রেখেছে। কামতা বাজারের নতুন ব্রিজ সেই সঙ্গে সেন্দ্রা টু কামতা সড়কের পাকাকরণ কাজ পায় একই ঠিকাদার। জানা যায়, ঠিকাদার আবুল কাশেম কন্টেকটার জেলা আওয়ামী লীগের বড় মাপের নেতা। যে কারণে স্থানীয়রা কাজের দ্বীরগতি ও অনিয়ম দেখেও প্রতিবাদ জানানোর সুযোগ পাচ্ছে না বলে জানা যায়। যে কারণে স্থানীয়রা প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন যেন অচিরেই ব্রিজ ও রাস্তা মেরামতের কাজ দ্রুত সম্পন্ন করা হয়।