মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের তালিকায় তারেকের নাম না থাকায় খুশি নন আহত সবুজ

image

২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনের আদেশ দেয়া হয়েছে। বহুল আলোচিত এ মামলার রায়ে খুশি নন গ্রেনেড হামলায় আহত মো. সম্রাট আকবর সবুজ। রায় ঘোষণার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের ফাঁসি হলেও রায়ে আমি হতাশ। এই ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী তারেক জিয়াকে ফাঁসি দিতে হবে। তিনি আরও বলেন, গ্রেনেড হামলার সময় ২৫০টি স্প্লিন্টার ঢুকেছিল শরীরে। ১০০টি বের করা হলেও বাকিগুলো এখনও আছে।

এদিকে, গ্রেনেড হামলার শিকার হন সাভারের মাহবুবা পারভিন। বুধবার (১০ অক্টোবর) রায় ঘোষণা হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ১৮শ স্প্লিন্টার নিয়ে বেঁচে থাকা মাহবুবা পারভিন। মামলার রায়ে ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড দেয়ায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করে তিনি বলেন, তারেক রহমানের যাবজ্জীবন না দিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হলে তিনি আরও খুশি হতেন। মাহবুবা পারভিন বলেন, গ্রেনেড হামলায় বেঁচে গেলেও এখনও শরীরে প্রায় ১৮শ স্প্লিন্টার রয়েছে। আগস্ট এলেই ওই ভয়াবহ স্মৃতি মনে পড়লে আঁতকে উঠি। সেই স্মৃতি আজও তাড়া করে বেড়ায়, কান্নায় চোখ-মুখ ভিজে যায়। শরীরে থাকা স্প্লিন্টারগুলো খুব যন্ত্রণা দেয়। ওই দৃশ্য মনে করলে ভয়ে এখনও দেহ অবশ হয়ে পড়ে। পাগলের মতো আবোলতাবোল বলতে থাকি। শরীরের যন্ত্রণা সহ্য করে মামলার রায়ের জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনছিলাম। বুধবার রায়ের মধ্য দিয়ে অপেক্ষার শেষ হলো।

মাহবুবা আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যাকে যারা হত্যা করার ষড়যন্ত্র করেছে, আইভি রহমানসহ ২৪ জন নেতাকর্মীকে যারা হত্যা করলো, তাদের শাস্তি দেখে যেতে পারবো কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তায় ছিলাম। অবশেষে এই রায়ের মধ্য দিয়ে তার অবসান ঘটলো। এখন মৃত্যুর আগে রায় দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানাচ্ছি। উল্লেখ্য, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় মৃতপ্রায় মাহবুবা পারভিন বেঁচে আছেন না মরে গেছেন-শুরুর দিকে কেউ বুঝতেই পারেননি। মৃত মনে করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। মর্গের লাশঘরে তাকে ফেলে রাখা হয়। টানা ছয় ঘণ্টা লাশঘরে পড়ে থাকার পর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আশিষ কুমার মজুমদার লাশ শনাক্ত করতে গিয়ে মাহবুবা পারভীনকে জীবিত আছেন বলে দেখেন। ৭২ ঘণ্টা পর জ্ঞান ফিরে এলে চিকিৎসার জন্য তাকে ভারতে পাঠান দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা। সেখান থেকে দেশে ফিরে কিছুটা সুস্থ হলেও প্রায় ১৮শ স্প্লিন্টার নিয়ে বেঁচে আছেন মাহবুবা পারভিন। এরমধ্যে মাত্র তিনটি স্প্লিন্টার বের করা হয়েছে।