লেনদেনের জন্য ব্যাংক দুই ঘন্টা খোলা থাকবে

image

ব্যাংক লেনদেনের সময় কমিয়ে দুই ঘণ্টা করা হয়েছে। ২৯ মার্চ থেকে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ব্যাংক লেনদেন হবে। আর ব্যাংকের আনুষঙ্গিক কাজ দেড়টার মধ্যে শেষ করতে হবে। ব্যাংকগুলোর জন্য আগামী ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত নতুন এ সময় কার্যকর থাকবে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) এক সার্কুলার জারি করা হয়েছে। বর্তমানে সকাল ১০টা থেকে এক টানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত ব্যাংক লেনদেন করা যেত। বাকি ২ ঘণ্টা অর্থাৎ ৬টা পর্যন্ত আনুষঙ্গিক কাজকর্ম করতেন ব্যাংকাররা। কিন্তু করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার আগামী ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এমতাবস্তায় বাংলাদেশ ব্যাংকও আলোচ্য ৫ দিন সীমিত আকারে ব্যাংকিং কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে এ সিদ্ধান্ত দেয়া হয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়, শুধুমাত্র নগদ জমা ও উত্তোলনের জন্য অনলাইন সুবিধা সম্বলিত ব্যাংকের ক্ষেত্রে গ্রাহকদের লেনদেনের সার্বিক সুবিধা নিশ্চিত করণার্থে শাখাসমূহের মধ্যে দূরত্ব বিবেচনায় নিয়ে প্রয়োজনীয় সংখ্যক শাখা খোলা রাখতে হবে। অনলাইন সুবিধা বহির্ভূত ব্যাংকের শাখাসমূহ শুধুমাত্র নগদ জমা ও উত্তোলনের জন্য খোলা থাকবে। শুধুমাত্র জরুরি বৈদেশিক লেনদেনের জন্য এডি শাখাসমূহ খোলা রাখা যাবে।

এটিএম ও কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন চালু রাখার সুবিধার্থে এটিএম বুথগুলোতে পর্যাপ্ত নোট সরবরাহসহ সার্বক্ষণিক চালু রাখার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের অপর একটি সার্কুলারের মাধ্যমে জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকদের শ্রেণীমান অপরিবর্তিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে। অর্থাৎ আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো (লিজিং কোম্পানি) তাদের গ্রাহকদের এ সময়ে খেলাপি করতে পারবে না।

অন্যদিকে, দেশের শেয়ারবাজারের লেনদেনও ১০ দিন বন্ধ থাকবে। ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত শেয়ারবাজারে লেনদেন বন্ধ থাকবে। মঙ্গলবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।