সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে

http://thesangbad.net/images/2020/April/07Apr20/news/corona-report.jpg

গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকেই আতঙ্কে রয়েছে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ এলাকার মানুষ। ঢাকায় মোট শনাক্ত হয়েছে ৮৪ জন ও নারায়ণগঞ্জে শনাক্ত হয়েছে ৩৮। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে ঢাকায় শনাক্ত হয়েছে ২০ জন। এছাড়া ১৫ জনই নারায়ণগঞ্জ। ফলে করোনার কারণে দুই এলাকার মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। এছাড়া, মানুষকে ঘরে রাখতে রাজপথের পাশাপাশি পাড়া-মহলায় টহল দিচ্ছে সশস্ত্র বাহিনী, র‌্যাব ও পুলিশ। জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া ভয়াবহ ছোঁয়াচে করোনাভাইরাস সংক্রমণে ক্রমেই রাজধানী ঢাকা অধিকতর ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে। গত ৫ এপ্রিল গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে মোট ১৮ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। তাদের মধ্যে শুধু ঢাকাতেই ১২ জন। ৬ এপ্রিল জানানো হয় ৮ মার্চ থেকে ঢাকায় মোট ৬৪ জন করোনা রোগী রয়েছেন। ঢাকার পরই রয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা। গত ২৪ ঘণ্টায় নারায়ণগঞ্জে শনাক্তকৃত ১২ জনসহ মোট শনাক্ত হয়েছে ২৩ জন। এছাড়া ৭ এপ্রিল মঙ্গলবার ঢাকায় ২০ জন ও নারায়ণগঞ্জে ১৫ জন।

এদিকে করোনাভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫ জন মারা গেছেন। ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ জনে। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৪১ জন। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট শনাক্ত ১৬৪ জন। ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। নতুন কেউ সুস্থ হয়নি। মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা ৩৩। গত ২৪ ঘণ্টায় আইইডিসিআরসহ দেশের বিভিন্ন ল্যাবরেটরিতে করোনা শনাক্ত সন্দেহভাজন ৭৯২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। মঙ্গলবার শনাক্ত ৪১ জনের মধ্যে পুরুষ ২৮ জন ও নারী ১৩ জন। নতুন যাদের শরীরে এ ভাইরাস ধরা পড়েছে তাদের ১৫ জনই নারায়ণগঞ্জের।

মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়। অনলাইনে বুলেটিন উপস্থাপনকালে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের প্রস্তুতি এবং বিশ্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পরিস্থিতি তুলে ধরার আগে ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭৯২ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, এই নমুনা পরীক্ষায় আরও ৪১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ফলে দেশে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১৬৪ জন। আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫ জন মারা গেছেন। এতে মৃতের সংখ্যা ১৭। নতুন করে কেউ সুস্থ হননি। অর্থাৎ করোনায় সুস্থ রোগীর সংখ্যা ৩৩-ই আছে। তিনি বলেন, নতুন শনাক্তদের মধ্যে ঢাকায় ২০ জন, ১৫ জন নারায়ণগঞ্জের। ঢাকার বাইরে নারায়ণগঞ্জকে আমরা ক্লাস্টার হিসেবে চিহ্নিত করেছি। তিনি আরও বলেন, নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ১০ বছরের নিচে একজন, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ৪, ২১ থেকে ৩০-এর মধ্যে ১০ জন, ৩১ থেকে ৪০-এর মধ্যে ৫ জন, ৪১ থেকে ৫০-এর মধ্যে ৯ জন, ৫০ থেকে ৬০-এর মধ্যে ৭ জন এবং ৬০-এর বেশি বয়সের রয়েছেন ৫ জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ২০ জন ঢাকার, ১৫ জন নারায়ণগঞ্জের, কুমিল্লা, কেরানীগঞ্জ এবং চট্টগ্রামের একজন করে রয়েছেন। বাকি তিনজন অন্যান্য এলাকার। মারা যাওয়া পাঁচজনের মধ্যে পুরুষ চার ও নারী একজন। মৃতদের মধ্যে ৬০-এর বেশি বছরের দুইজন, ৫০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে দুইজন এবং ৪১ থেকে ৫০-এর মধ্যে একজন রয়েছেন।

আইইডিসিআর পরিচালক জানান, আক্রান্তদের মধ্যে পুরুষ ২৮ জন ও নারী ১৩ জন। নতুন করে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে পুরুষ চারজন, নারী একজন। দুইজন ঢাকার, তিনজন ঢাকার বাইরের। ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, এর আগে এটিকে আইইডিসিআরের অনলাইন প্রেস ব্রিফিং বলা হলেও এখন থেকে দৈনন্দিন হেলথ বুলেটিন বলব। এখন থেকে আর গণমাধ্যমকর্মীদের কাছ থেকে কোন প্রশ্ন গ্রহণ বা উত্তর দেয়া হবে না।

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ১৩ লাখ। মারা গেছেন প্রায় পৌনে এক লাখ মানুষ। তবে দুই লাখ ৮৬ হাজারের বেশি রোগী ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়। এরপর থেকে প্রায় নিয়মিত কয়েকজন করে নতুন আক্রান্ত রোগীর খবর দিচ্ছিল আইইডিসিআর। এরমধ্যে ৫ এপ্রিল একবারে ১৮ জন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হওয়ার কথা জানানো হয়। আর তার পরদিন ৬ এপ্রিল নতুন করে ৩৫ জন শনাক্ত বলে জানানো হয়।

সর্বশেষ হিসাবে দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৬৪। মারা গেছেন ১৭ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৩ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে নানা পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। যার মূলে রয়েছে মানুষে মানুষে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। সে বিষয়টি মাথায় রেখে গৃহীত পদক্ষেপগুলোর মধ্যে সর্বশেষ মুসলিদের ঘরে নামাজ পড়তে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের আহ্বানও রয়েছে। এছাড়া, মানুষকে ঘরে রাখতে রাজপথের পাশাপাশি পাড়া-মহল্লায় টহল দিচ্ছে সশস্ত্র বাহিনী। এছাড়া করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে প্রথমে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। পরে এই ছুটি ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ছুটির সময়ে অফিস-আদালত থেকে গণপরিবহন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কাঁচাবাজার, খাবার, ওষুধের দোকান, হাসপাতাল, জরুরি সেবা এই বন্ধের বাইরে।

সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা : সংবাদ সম্পাদক

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দৈনিক সংবাদের সকল পাঠক, লেখক, বিজ্ঞাপনদাতা, শুভাকাঙ্খী ও শুভানুধ্যায়ীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা । ঈদ সবার জীবনের বয়ে আনুক অনাবিল সুখ আর আনন্দ-সম্পাদক

করোনায় মারা গেলেন আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি হাজী মকবুল

image

এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদের মা ও ছেলে করোনায় আক্রান্ত

দেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যবসায়িক গোষ্ঠী এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদের মা ও ছেলেরও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। শনিবার বিআইটিআইডির ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় সাইফুলের মা চেমন আরা বেগম (৮৫) এবং ছেলে ইউনিয়ন ব্যাংকের চেয়ারম্যান আহসানুল আলমের (২৬) করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে বলে তার ভাগ্নে আরিফ আহমেদ জানান।

চট্টগ্রামের ৭ উপজেলার অর্ধশত গ্রামে আজ ঈদ

image

করোনাকে ফাঁকি দেওয়ার সুযোগ নেই : কাদের

image

শিক্ষক পরিচয় গোপন দলীয় পরিচয়ে ত্রাণ ভাগবাটোয়ারা ও সংবাদ সম্মেলন

image

ঈদযাত্রায় প্রাইভেট গাড়ী চলাচলের অনুমতি দেওয়া সরকারের আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত : যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ

image

মির্জাপুরে পুলিশ সুপারের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

image

সশস্ত্র বাহিনীর বর্তমান ও সাবেক ১০২০ জন করোনায় আক্রান্ত

image