সরকারি রাস্তা নির্মাণের অজুহাতে নিজের জন্য অবৈধ নির্মাণ

image

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) : এভাবেই ভরাট করা হচ্ছে সরকারি জলাশয় -সংবাদ

শ্রীনগরে রাস্তা নির্মাণের অজুহাতে সরকারি জলাশয় ভরাট করছে এক ইউপি সদস্য। ১৩ অক্টোবর রোববার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার শ্রীনগর-ভাগ্যকুল আঞ্চলিক মহাসড়কের জুশুরগাঁও নামকস্থানে রাস্তার দক্ষিণ পার্শ্বে এ ভরাট কাজ চালাচ্ছেন পাটাভোগ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন।

সূত্রমতে জানা যায়, দুই দিন যাবত ড্রামট্রাক দিয়ে বালু এনে পে-লোডার দিয়ে দিন-রাত দ্রুত মাটি ভরাটের কাজ করা হচ্ছে। রাস্তা বানানোর অজুহাতে প্রায় কোটি টাকা মূল্যের সরকারি দখল করা হচ্ছে। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, এক সময় শ্রীনগর থেকে ভাগ্যকুল পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশের জলাশয়গুলো জেলেদের মাছ চাষের জন্য একসনা লিজ দেয়া হতো। জায়গা জমির দাম হুহু করে বেড়ে যাওয়ায় ভূমি দস্যুরা ওইসব জলাশয় মাটি দিয়ে ভরাট করে বাড়িঘর, দোকান পাট ও মার্কেট নির্মাণ করে ভাড়া দিচ্ছে। কেউ কেউ আবার মোটা অঙ্কের টাকায় ওই ভরাট জায়গা বিক্রিও করছে। অথচ এই সব সরকারি জায়গা উদ্ধার করে রাস্তার দুই পাশে মার্কেট নির্মাণ করে ভাড়া দিলে প্রতিবছর সরকারের রাজস্ব আয় হতো কোটি কোটি টাকা।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন কাছে জানতে চাইলে ওই জায়গা তিনি লিজ আনার কথা বললেও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। এ সময় তিনি দম্ভ করে বলেন, যা পারেন লেইক্যা দেনগা!

জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলামের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরকারি জলাশয় কোনভাবেই ভরাট করা যাবে না। যদি কেউ এমনটা করে থাকেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সরকারি জলাশয় দখলের বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিগার সুলতানাকে জানালে তিনি বলেন, আমি এখনই লোক পাঠিয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি।