সাবেক কাউন্সিলর রাজীবের বিরুদ্ধে মুদ্রাপাচার মামলা

image

২০১৯-এ ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীব এবং তার চার সহযোগীর বিরুদ্ধে মুদ্রাপাচার আইনে মামলা করেছে সিআইডি। বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) মোহাম্মদপুর থানায় এসআই জায়েদ আলী জাহিদ এ মামলা দায়ের করেন। মামলায় রাজীবের বিরুদ্ধে চার বছর কাউন্সিলরের দায়িত্ব পালনকালে অবৈধভাবে জমি দখল, ভয়ভীতি প্রদর্শন, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, গরুর হাটের টেন্ডারবাজি, অবৈধভাবে উপার্জিত অর্থ দিয়ে বাড়ি, জমি, ফ্ল্যাট ক্রয়, নামে-বেনামে প্রতিষ্ঠান খুলে বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমে অর্থ স্থানান্তরের অভিযোগ আনা হয়েছে।

সহযোগী শাহ আলম জীবন, কামাল, নুর মোহাম্মদ, রুহুল আমিনসহ ১০/১২ জনের সহযোগিতায় রাজীব বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমে ১৮ কোটি টাকা ৪০ লাখ টাকা স্থানান্তর করেছেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। এসআই জাহিদ বলেন, বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) এই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে আবেদন করার পর রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। গত ১৯ অক্টোবর সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও দখলদারিত্বের’ অভিযোগে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাড়ি থেকে রাজীবকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

তাকে সঙ্গে নিয়ে মোহাম্মদপুরে তার বাসা ও অফিসে রাতভর অভিযান চালিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র ও মদ উদ্ধার করে র‌্যাব। পরে তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে দুইটি মামলা হয়। এরপর রাজীবের আয়ের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ ২৬ কোটি ১৬ লাখ ৩৬ হাজার টাকার সম্পদ পাওয়ার অভিযোগে গত ৬ নভেম্বর মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী। যুবলীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন রাজীব। গ্রেফতারের পর তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।