১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার হিসেবে পুনরায় নিয়োগ পেলেন আছাদুজ্জামান মিয়া

image

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হিসেবে সদ্য বিদায়ী কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াকে পুনরায় কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ১ মাসের জন্য চুক্তিভিত্তিক তাকে ডিএমপি কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দিয়ে সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। ১৩ আগস্ট মঙ্গলবার আছাদুজ্জামান মিয়ার পুলিশের চাকরির মেয়াদ শেষ হয়েছে। ওইদিন নতুন কমিশনারের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করার কথা ছিল আছাদুজ্জামান মিয়ার। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে বলা হয়, ১৪ আগস্ট থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এক মাসের জন্য চুক্তিভিত্তিক এই নিয়োগ কার্যকর হবে।

পুলিশ কমিশনার হিসেবে দায়িত্বের মেয়াদ এক মাস বাড়ার খবরে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, সরকার যতদিন ‘প্রয়োজন মনে করেছে’ ততদিনের জন্যই চাকরির মেয়াদ বাড়িয়েছে। এটা সম্পূর্ণ সরকারের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে। আমার এখানে কিছু বলার নেই। আমার যা দায়িত্ব তা আমি বিধি অনুযায়ী পালন করে যাব।

পুলিশের একাধিক সূত্র জানায়, দীর্ঘ সাড়ে ৪ বছর সবচেয়ে বেশি সময় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করে ইতিহাস সৃষ্টিকারী আছাদুজ্জামান মিয়া চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেয়ে আরেকটি ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। তিনি একমাত্র ব্যক্তি যিনি চুক্তিতে ডিএমপির কমিশনার হিসেবে পুনরায় দায়িত্ব পেয়েছেন। ১৩ আগস্ট আছাদুজ্জামান মিয়ার চাকরি থেকে অবসরে যাওয়ার পর নতুন কমিশনার হিসেবে কে দায়িত্ব পালন করবেন এ নিয়ে গত ৬ মাস ধরেই নানা জল্পনাকল্পনা চলে আসছিল। ডিএমপির নতুন কমিশনারের দায়িত্ব পেতে পুলিশের মধ্যে একাধিক কর্মকর্তা গোপনে রাজনৈতিক তদবিরসহ নানা তৎপরতা চালিয়ে আসছিল।

একাধিক সূত্র জানায়, আছাদুজ্জামান মিয়ার পর নতুন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া নিয়ে পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত আইজিপি ঢাকা রেঞ্জের সাবেক ডিআইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত আইজিপি ও সিআইডি প্রধান শফিকুল ইসলাম, পুলিশ স্টাফ কলেজের রেক্টর অতিরিক্ত আইজিপি শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসানসহ কয়েকজনের নাম আলোচনায় ছিল। এরমধ্যে রাজনৈতিকভাবে সিআইডি প্রধান শফিকুল ইসলাম এগিয়ে আছে। তবে পুলিশের অতিরিক্ত আইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন পেশাদার পুলিশ হিসেবে সবচেয়ে বেশি যোগ্য।

পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, ‘এখন শোকের মাস। এই মাসে দেশে অনেক ঘটনা ঘটেছে অতীতে। ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারকে হত্যা করা হয়েছে। ১৭ আগস্ট দেশজুড়ে বোমা হামলা হয়েছে। ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে। নিরাপত্তার বিচারে এই মাসটা খুব স্পর্শকাতর। ওই দিনগুলোকে কেন্দ্র করে জঙ্গি সংগঠন বা স্বাধীনতাবিরোধীদের তৎপর হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এই মাস ঘিরে প্রতিবছরই আমাদের ব্যাপক নিরাপত্তা প্রস্তুতি নিতে হয়। এ সময় নতুন কোন কমিশনার দায়িত্ব নিলে, তার মধ্যে কোন ঘটনা ঘটলে, তার পক্ষে খুব দ্রুত সব বুঝে সামলে নেয়া কঠিন হতে পারে। আছাদুজ্জামান মিয়া লম্বা সময় ধরে ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আছাদুজ্জামান মিয়াকে শীঘ্রই নতুন কোন দায়িত্ব দেয়া হতে পারে। সে কারণে আপাতত দীর্ঘ চুক্তিতে না গিয়ে মাত্র এক মাসের জন্য তাকে পুরনো পদে রাখা হতে পারে।

১৯৬০ সালের ১৪ আগস্ট ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় জন্ম নেয়া আছাদুজ্জামান ১৯৮৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন। ২০১৫ সালের ৭ জানুয়ারি ডিএমপি কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পান। এর আগে তিনি রাজারবাগে পুলিশের টেলিকম বিভাগের ডিআইজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি সিলেট, সুনামগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইলসহ বিভিন্ন জেলায় এসপি ও রেঞ্জে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজিও ছিলেন।