রাজস্ব আদায়ে গতি বাড়ছে

image

করোনায় বিপর্যস্ত অর্থনীতি ধীরে ধীরে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। এক সময় তলানিতে থাকা আমদানি রপ্তানি, রেমিট্যান্স, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বর্তমানে খুবই ভালো অবস্থানে রয়েছে। এর সঙ্গে তাল মিলিয়ে রাজস্ব আদায়ও বাড়ছে। চলতি অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে ১৪ হাজার ৭৫৬ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করেছিল জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআর। পরের মাস অগাস্টে তা বেড়ে ১৫ হাজার ৭৫৬ কোটি টাকা হয়েছে। সর্বশেষ সেপ্টেম্বর মাসে তা আরও বেড়ে ২০ হাজার কোটি টাকায় ঠেকেছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, সব মিলিয়ে চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) আদায় হয়েছে ৪৯ হাজার ৯৮৯ কোটি ৭২ লাখ টাকা। গত বছরের এই তিন মাসে আদায় হয়েছিল ৪৮ হাজার ১৭ কোটি ২০ লাখ টাকা। এ হিসাবে জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে গত বছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা বা ৪ দশমিক ১১ শতাংশ বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে। মহামারীকালে বড় ধাক্কা নিয়ে শুরু হয় অর্থবছর। প্রথম মাস জুলাইয়ে গত বছরের জুলাইয়ের চেয়ে ২২ শতাংশ রাজস্ব আদায় কম হয়। দুই মাস (জুলাই-অগাস্ট) মিলিয়ে অবশ্য প্রবৃদ্ধি হয়। তবে খুবই সামান্য মাত্র দশমিক শূন্য ১৬ শতাংশ। গত বছরের মার্চে দেশে কোভিড-১৯ মহামারীর প্রাদুর্ভাব শুরুর দিকে রাজস্ব আদায়ে ধস নেমেছিল। তখন রাজস্ব আদায় প্রায় তলানিতে ঠেকেছিল। ওই সময়ে প্রায় সব কিছু বন্ধ থাকলেও চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম চালু রাখা হয়। তবুও রাজস্ব আদায় খুব বেশি হয়নি। গত ২০১৯-২০ অর্থবছরের শেষ তিন মাসে (এপ্রিল-জুন) আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৫০ শতাংশের মতো রাজস্ব আদায় কমে যায়। পরের তিন মাসে অর্থাৎ চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে সেই অবস্থা থেকে উঠে দাঁড়িয়েছে। এনবিআর সূত্রে আরও জানা গেছে, গত এপ্রিল-জুন সময়ে মাত্র ৫২ হাজার ২৮৯ কোটি টাকা শুল্ক-কর আদায় হয়েছে। আগের বছরের একই সময়ে ৭০ হাজার ৩৬২ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছিল। সেই হিসাবে আগের বারের চেয়ে ১৮ হাজার কোটি টাকা কম আদায় হয়েছে। মূলত গত এপ্রিল-জুন সময়ে আমদানি-রপ্তানিতে গতি ছিল না। দোকানপাট বন্ধ ছিল। অর্থনীতি প্রায় থমকে দাঁড়ায়। এসব কারণে শুল্ক-কর আদায় কমে যায়। পরের তিন মাসে দোকানপাট খুলতে শুরু করে। আমদানি-রপ্তানিও বাড়তে থাকে। ফলে রাজস্ব আদায়ের পরিস্থিতিও বদলে যেতে থাকে। ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে অর্থাৎ ২০১৯ সালের জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে যত রাজস্ব আদায় হয়েছিল, ২০২০ সালের জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে তার চেয়ে প্রায় এক হাজার ৯৭২ কোটি ৫২ লাখ টাকা বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে।

গত কয়েক বছরের রাজস্ব আদায়ের গতি-প্রকৃতি বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে প্রতি মাসে গড়ে ১৪ থেকে ২১ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়। তবে এবার এনবিআরকে আগের বছরের চেয়ে ১ লাখ ১২ হাজার কোটি টাকা বা ৫০ শতাংশ বেশি রাজস্ব আদায় করতে হবে।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) এনবিআর রাজস্ব আদায়ের যে হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করেছে, তাতে দেখা যায়, ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে সবচেয়ে বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট আদায়ে। এই খাত থেকে ১৮ হাজার ১১১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা আদায় হয়েছে। প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১ দশমিক ১৯ শতাংশ। আমদানি ও রপ্তানি পর্যায়ে রাজস্ব আদায় হয়েছে ১৫ হাজার ৯৫৯ কোটি টাকা, প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৬ দশমিক ৭৮ শতাংশ। জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে আয়কর ও ভ্রমণ কর বাবদ প্রত্যক্ষ কর আদায় হয়েছে ১৫ হাজার ৯১৯ কোটি টাকা। প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৪ দশমিক ৯২ শতাংশ। তবে সব মিলিয়ে এই তিন মাসে লক্ষ্যের চেয়ে ১৩ হাজার ৭২৪ কোটি ৬ লাখ টাকা রাজস্ব কম আদায় হয়েছে। জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে লক্ষ্য ধরা আছে ৬৩ হাজার ৭১৩ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। চলতি অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের মোট লক্ষ্য ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। লক্ষ্য অর্জনে প্রতি মাসে গড়ে ৩১ হাজার কোটি টাকা আদায় করতে হবে। অর্থাৎ আগামী ৯ মাসে (অক্টোবর-জুন) আদায় করতে হবে ২ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা।

হাউস বিল্ডিং’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান

image

ডিএসই থেকে রাজস্ব বেড়েছে ৩২ কোটি টাকা

করোনার মধ্যেও গত ৫ মাসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) থেকে সরকারের রাজস্ব আদায় বেড়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকে দুই ডেপুটি গর্ভনর নিয়োগ

বাংলাদেশ ব্যাংকে নতুন দু’জন ডেপুটি গভর্নর নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন নির্বাহী পরিচালক কাজী ছাইদুর রহমান ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের (রাকাব) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) একেএম সাজেদুর রহমান খান।

শীর্ষ গ্রাহকরা খেলাপি হলে মূলধন সংকটে পরবে অধিকাংশ ব্যাংক

image

ব্যাংকে ফের সাইবার হামলার আশঙ্কা

ব্যাংকের এটিএম (অটোমেটেড টেলার মেশিন) বুথসহ দেশের বিভিন্ন ইলেকট্রনিক বুথে উত্তর কোরিয়ার একটি হ্যাকার গ্রুপ সাইবার অ্যাটাক করতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

হাই-টেক পার্কের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দফতরের সমঝোতা

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ওয়ানস্টপ সার্ভিস (ওএসএস) পোর্টালে নতুন নতুন সেবা যুক্ত করার লক্ষ্য নিয়ে আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দফতরের সঙ্গে সমঝোতা করেছে।

শিল্প খাতের গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনায় একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার

শিল্প খাতের গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনায় একযোগে কাজ করার অঙ্গিকার করেছে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) এবং নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ।

সার কারখানা নির্মাণ প্রক্রিয়া দ্রুত এগিয়ে নিতে শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশ

image

ব্যাংকে সাইবার হামলার শঙ্কায় ফের সতর্কতা জারি

image