রিলায়েন্স-জেরার বিদ্যুৎ প্রকল্পে ৬৪ কোটি ডলারের ঋণ

image

দেশে একটি বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য ভারত ও জাপানের যৌথ মালিকানার একটি কোম্পানি ৬৪ কোটি ২০ লাখ ডলারের ঋণচুক্তি করেছে কয়েকটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে।

গ্যাসভিত্তিক ৭১৮ মেগাওয়াট (মেগাওয়াট) বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ ও পরিচালনার জন্য রিলায়েন্স বাংলাদেশ এলএনজি এবং পাওয়ার লিমিটেড (আরবিএলপিএল) কে এ অর্থ দেওয়া হবে।

ঋণ সহায়তার মধ্যে ১০ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক-এডিবি। ১০ কোটি ডলার আসবে জাইকার সাহায্যপুষ্ট বেসরকারি অবকাঠামো তহবিল (এলইএপি) থেকে। জাপান ব্যাংক ফর ইন্টারন্যাশনাল কোওঅপারেশন এবং আরও চারটি বাণিজ্যিক ব্যাংক এ প্রকল্পে অর্থায়ন করতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বলে এডিবির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

প্রকল্পটি হবে ঢাকার দক্ষিণ-পূর্বে, মেঘনা নদীর তীরে। এডিবি বলছে এর ফলে বিদ্যুতের জাতীয় উৎপাদন ৪ শতাংশ বাড়বে। কয়লা ও তেলের মতো পরিবেশগতভাবে ক্ষতিকর এবং ব্যয়বহুল জ্বালানির ব্যবহার এবং বিদ্যুতের ক্ষেত্রে আমদানি-নির্ভরতা কমাবে।

ঋণচুক্তি স্বাক্ষরের পর জেরা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে এ প্রকল্পের যাবতীয় চুক্তির কাজ শেষ হওয়ায় এখন নির্মাণ কাজ পুরোপুরি শুরু হবে।

নারায়ণগঞ্জের মেঘনাঘাটে এ বিদ্যুৎপ্রকল্পের জন্য গতবছর ১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশের বিদ্যুৎ বিভাগের সঙ্গে চুক্তি করে ভারতের বিদ্যুৎ খাতের অন্যতম বড় কোম্পানি রিলায়েন্স। পরে তারা এ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য জাপানি কোম্পানি-জেরাকে অংশীদার হিসেবে নেয়।

চুক্তি অনুযায়ী, বাংলাদেশের তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের কাছ থেকে গ্যাস কিনে বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে আরবিএলপিএল। এই কেন্দ্র থেকে ২২ বছর পিডিবিকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।

প্রতি ডলারের বিনিময় হার ৮০ টাকা ধরে তিতাস গ্যাস প্রতি মিলিয়ন ব্রিটিশ থারমাল ইউনিট (এমএমবিটিইউ) গ্যাস বা এলএনজি সরবরাহ করবে ৭ দশমিক ২৬২৫ ডলার দরে। আর রিলায়েন্স এ কেন্দ্রে তাদের উৎপাদিত প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ পিডিবির কাছে বিক্রি করবে ৭ দশমিক ৩১২৩ সেন্ট বা ৫ টাকা ৮৪ পয়সা দরে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, আগামী তিন বছরের মধ্যে এই কেন্দ্র উৎপাদনে যাবে এবং উৎপাদিত ৪০০ ভোল্টের বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে।

এডিবির প্রাইভেট সেক্টর অপারেশনস বিভাগের এশিয়া, মধ্য এশিয়া এবং পশ্চিম এশিয়ার ডাইরেক্টর শান্তনু চক্রবর্তী এবং আরবিএলপিএল-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রঞ্জন লোহার চুক্তিটি স্বাক্ষর করেন।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বিদ্যমান বিদ্যুৎ ঘাটতি আরো কমবে এবং দেশের বিদ্যুৎ খাতে আরও বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ বাড়বে বলে আশা করছে এডিবি। এডিবি ঋণসহায়তার পুরো বিষয়টি তত্ত্বাবধান করবে।

এডিবির শান্তনু চক্রবর্তী বলেন, প্রকল্পটি বাংলাদেশের বিদ্যুত ঘাটতি কমাতে সহায়তা করবে, যা শিল্প ও অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রাখার জন্য জরুরি।

ইতেমধ্যে এ প্রকল্পের নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পেয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার কোম্পানি স্যামসাং সিঅ্যান্ডটি।

রিলায়েন্স গ্রুপের চেয়ারম্যান অনীল আম্বানি বলেছেন, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় আইপিপিতে (ইনডিপেনডেন্ট পাওয়ার প্রডিউসার) এটাই সবচেয়ে বড় বিদেশি বিনিয়োগ। এ প্রকল্পের জন্য ঋণ চুক্তি সম্পন্ন করতে পেরে আমর আনন্দিত।

জেরার প্রেসিডেন্ট সাতোশি ওনোদা বলেন, বাংলাদেশের ধারাবাহিক অর্থনৈতিক অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুতের চাহিদাও অনেক বাড়বে। এই প্রকল্পের পাশাপাশি বিদ্যুৎ উৎপাদন ও অবকাঠামো উন্নয়নের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের অর্থনীতির সম্প্রসারণে আমরা ভূমিকা রাখতে চাই।

আরবিএলপিএল-এর প্রধান নির্বাহী রঞ্জন লোহার বলেন, এই বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পের জন্য এডিবিসহ আন্তর্জাতিক উন্নয়ন ব্যাংকগুলির সহায়তা পাওয়ায় আরবিএলপিএল নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে আরবিএলপিএল বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখতে চায়।

এডিবি বলছে, গত এক দশকে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বাড়লেও চাহিদা এখনও পুরোপুরি পূরণ করা যায়নি। এই ঘাটতি কমাতে বাংলাদেশের সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদনে বেসরকারি খাতের বিনিয়োগের ওপর জোর দিয়ে আসছে।

শুরু থেকে এই প্রকল্পে ঋণসহায়তা দিয়ে আসছে এডিবি।

লেনদেন ৮শ’ কোটি টাকা ছাড়াল শেয়ারবাজারে

image

দাম কমের কারণে বাংলাদেশের পোশাক কিনেন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ীরা

image

সবুজ অর্থায়নে বিনিয়োগ কমেছে ১৫ শতাংশ

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সবুজ অর্থায়ন বা গ্রিন ফিন্যান্স বাড়ানোর ওপর জোর দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। কিন্তু এ খাতে হচ্ছে না

শেয়ারবাজারে লেনদেনের সময় বাড়ল

image

‘ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের জন্য সহায়ক হতে পারে ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম’

image

ঘুরে দাঁড়িয়েছে রপ্তানি বাণিজ্য

image

২৬ হাজার কোটি টাকা বাজার মূলধন ফিরেছে শেয়ারবাজারে

জুলাই মাসে বেশ উত্থানে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। মাসটিতে সূচক, লেনদেন এবং বাজার মূলধন বেড়েছে। এ সময়ে দুই

প্রাইজবন্ডের ১০০তম ড্র, প্রথম পুরস্কার ০৯০৭৪৮৫

image

মাইক্রোসফটের টিকটক কেনা থমকে গেছে

image