গ্রীষ্মের ফুলে বর্ণিল জাবি

image

কৃষ্ণচূড়ার লাল রঙে চেয়ে গেছে জাবি ক্যাম্পাস

করোনার আঘাতে পৃথিবী স্থবির হয়ে গেলেও প্রকৃতি সেজেছে নিজের মতই। কোনো আয়োজন ছাড়াই প্রকৃতিতে বৈশাখের আগমন ঘটেছে। ঝিরঝির বৃষ্টি দিয়ে গ্রীষ্মের শুরু। বৃষ্টির ছোয়ায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) সবুজ ক্যাম্পাস হয়েছে মনোরম। গ্রীষ্মের রঙিন ফুল দিচ্ছে যৌবনের দোলা। প্রকৃতির এই যৌবন দেখার মত কেউ নেই।

সাত’শ একরের ক্যাম্পাস আজ নীরব। বসেছে লাল, হলুদ, বেগুনী, সাদা রঙের ফুলের মেলা। গ্রীষ্মের ফুলে রঙিন সাজে সেজেছে। এই সাজ দেখতে এসময় উৎসুক মানুষের ভিড়ে মুখরিত থাকতো এই ক্যাম্পাস। ছুটির দিনগুলোতে দর্শনার্থীদের ভিড় ছিলো ক্যাম্পাসের স্বাভাবিত চিত্র। গ্রীষ্মের রঙিন ফুলের আকর্ষণ যেন গরমের প্রভাবকে হার মানাতো। প্রতিটি অনুষদ, আবাসিক হল, শহীদ মিনার, মুন্নি চত্বর, মুরাদ চত্বর, কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ, লেকের পাড়ে আজ শুধু জারুল-কৃষ্ণচূড়া-সোনালু ফুলের রাজত্ব।

কৃষ্ণচূড়ার লাল রঙে চেয়ে গেছে ক্যাম্পাস। প্রশাসনিক ভবন, পুরাতন কলা, মেয়েদের আবাসিক হল, অডিটোরিয়ামের সামনে ও পরিবহর চত্বর থেকে রাঙ্গামাটি রাস্তার দুপাশে লাল গালিছা বিছানো। যেন লাল সবুজের বাংলার এক অপরূপ চিত্রায়ন ফুটে উঠেছে এখানে।

হিমু সাজার প্রতিযোগিতায় প্রকৃতিও পিছিয়ে নেই। সোনালু ফুলের হলুদ আভায় সারা ক্যাম্পাসে বসেছে হলুদিয়ার মেলা। সেই মেলায় প্রেমিক-প্রেমিকার ভিড় নেই। এ বছর সোনালু ফুলের মালায় স্মৃতিগুলো লুকিয়ে রাখার সুযোগ পায়নি।

বেগুনী রঙে রঙিন ক্যাম্পাসের লেকের পাড়গুলো। গরম আর জারুল ফুলের একই সাথে বসবাস। গরমের তীব্রতার সাথে সাথে বেগুনী রঙের মাত্রাও বাড়ে। জারুল দৃষ্টিনন্দন সোভায় মোহিত করে। মাঝে মাঝে জাবির লেকগুলোতে জারুল ও সোনালু ফুলের মিতালি যেন এক স্বর্গরাজ্য। এছাড়াও আছে নাম জানা-অজানা ফুলের বৈচিত্র্য।

জাপানের জাতীয় ফুল ক্যাসিয়া রেনিজেরার মন মাতানো সৌন্দর্য বিমহিত করে সবাইকে। এ ফুলে ছেয়ে গেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বৃক্ষরাজি। শ্বেতশুভ্র ভিনদেশি এ প্রজাতির ফুলগাছের আদি নিবাস জাপান। এর স্নিগ্ধ রূপ ও রং বৈচিত্র্য থেকে চোখ সরিয়ে নেওয়া কঠিন। ফুলটির বৈজ্ঞানিক নাম ‘বার্মিজ পিংক ক্যাসিয়া’। বর্ষা ছাড়া মোটামুটি বছরের বেশির ভাগ সময়ই বৃক্ষটি পত্রহীন অবস্থায় থাকে। বৃষ্টির ছোয়া পেলেই নতুন পাতা গজায় আর গোলাপি ফুলগুলো ক্রমে সাদা হতে থাকে।

এবার শিক্ষার্থীরা প্রকৃতির এই মনোমুগ্ধকর সৌন্দর্য উপভোগ থেকে বঞ্চিত।

গতবছর ঠিক এসময় কৃষ্ণচূড়ার খোঁজে ক্যাম্পাসে ঘুরতে আসা নাজমুল ইসলাম মিথুন জানায়, ‘জাবি ক্যাম্পাসের সাথে একাডেমিক সম্পর্ক না থাকলেও এখানকার প্রকৃতির সাথে সম্পর্ক কেমন জানি একটা মায়াজালের মত।

গ্রীষ্মের রোদ পড়া গরমেও গাছে কৃষ্ণচূড়া দেখেই যেনো নিমিষেই গায়ে একটা শীতল হাওয়া বয়ে যায়। কৃষ্ণচূড়া গাছে গাছে যেনো লাল রঙের মেলা।

রাবির শিক্ষকরা ৬০০ কর্মচারীকে সহায়তা দিচ্ছেন

করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত অসহায়৬০০ কর্মচারীকে ১২ লাখ টাকা সহযোগিতার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি)শিক্ষকরা।

ছাত্র অধিকার পরিষদের কর্মকান্ড রাজনৈতিক শিষ্টাচার বর্হিভূত

image

বাড়িভাড়া সংকট নিরসনে জবি শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবি

image

শিক্ষা সংকট নিরসনে জবি ছাত্র ইউনিয়নের পাঁচ দফা দাবি

image

ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হলো “করোনাথন-১৯” হ্যাকাথন

image

এবার জবির সিকিউরিটি গার্ড করোনায় আক্রান্ত

image

করোনা আক্রান্ত কর্মচারীর মৃত্যুতে জবি পরিবারের শোক

image

৬০০ শিক্ষার্থীর তালিকা চেয়ে জবি শিক্ষক সমিতির চিঠি

image

করোনায় আক্রান্ত জবির কর্মচারী

image