জবি শিক্ষক সমিতি নির্বাচন : তিন নৌকা নিয়ে আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের ত্রিমুখী লড়াই

image

আওয়ামীপন্থীদের ত্রিমুখী লড়াই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন আগামী ২৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনকে ঘিরে চলছে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা। বিভাগে বিভাগে গিয়ে কথা বলছেন শিক্ষকরা। বরাবরের মত এবারো ক্ষমতাসীন দলের শিক্ষকরা দুটি প্যানেল দিয়েছেন। ২৩ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. মো. মনিরুজ্জামান খন্দকার স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে দেখা যায়, ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটি গঠনের লক্ষ্যে প্রত্যেক পদে ২জন করে অংশগ্রহণ করলেও সভাপতি পদে ৩ জন শিক্ষক অংশগ্রহণ করেছেন। এবারের নির্বাচনে কোন প্যানেল ছাড়াই সভাপতি পদে অংশগ্রহণ করছেন ‘জয় বাংলা শিক্ষক সমাজে’র আহ্বায়ক ও বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস। এদিকে ক্ষমতাসীন নীল দলের দুই প্যানেল থেকে সভাপতি পদে লড়ছেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. নূরে আলম আব্দুল্লাহ এবং একাউন্টিং এবং ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. শওকত জাহাঙ্গীর।

এবার নির্বাচনে ৬টি পদে মোট ৩১ জন পদ প্রত্যাশী শিক্ষক লড়াই করছেন এবং মোট ভোটার ৬৭৮ জন। এদের মধ্যে থেকে ১৫ জন নির্বাচিত হবেন। সদস্যপদে ১০ জন ও বাকি ৫ পদে একজন করে নির্বাচিত হবেন। নির্বাচনে সভাপতি পদে ৩ জন, সহ-সভাপতি পদে ২জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ২ জন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে ২জন, কোষাধ্যক্ষ পদে ২ জন এবং সদস্য পদে ২০ জন শিক্ষক নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন।

শিক্ষক সমিতি নীলদলের (গঠনতান্ত্রিক) সভাপতি প্রার্থী অধ্যাপক ড. মো. শওকত জাহাঙ্গীর বলেন, মাত্র ১৪ বছরে উন্নয়ন ও আস্থার প্রতীকে পরিণত হয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়। আমি মনেকরি, বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে শিক্ষকদের ভূমিকা রাখার মত অবস্থান রয়েছে। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে যা আমরা দেখতে পাই। বিগত সময়গুলোতে আমাদের শিক্ষক প্রতিনিধিদের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের আভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে কোনো ভূমিকা রাখতে দেখা যায়নি। এছাড়াও সারা বাংলাদেশের শিক্ষক সমাজও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্য থেকে নেতৃত্ব প্রত্যাশা করে।

শিক্ষক সমিতি নীলদলের (একাংশ) সভাপতি প্রার্থী অধ্যাপক ড. মো. নূরে আলম আব্দুল্লাহ বলেন, আমি আমার জয়ের ব্যাপারে সম্পূর্ন আশাবাদী। আমাদের তিন দলের মধ্যে সমঝোতা হলে আরও ভালো হতো। আমাদের মাঝে অনৈক্য একধরনের বিব্রতকর অবস্থা সৃষ্টি করেছে।

জয় বাংলা শিক্ষক সমাজের প্রার্থী অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস বলেন, আমি বিজয়ী হলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও শেখ হাসিনার মত নেতৃত্ব আমাদের শিক্ষকদের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করব। আমাদের নীলদলে অনেক বিএনপি-জামায়াত লুকিয়ে আছে। যারা সুবিধাবাদী আচরন করে। আমি নির্বাচিত হলে, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে মুক্তবু্িদ্ধও চর্চা ও অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ার আহ্বান ছড়িয়ে দেবো।