যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে জবিতে গণস্বাক্ষর

image

সম্প্রতি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) দুই নারী শিক্ষার্থীর সাথে যৌন হয়ারানির ঘটনায় ও সারাদেশে সকল প্রকার যৌন নির্যাতনের বিরুদ্ধে গণসাক্ষর কর্মসূচীর আয়োজন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক সংগঠন ‘স্বাধীকার আন্দোলন’ ও ‘উই আর রিহ্যাসারস’।

১০ মার্চ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সম্মুখে এই গণস্বাক্ষর কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এই সময় শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন প্রতিবাদ মুলক উক্তি,ভাষা, ও প্রতিবাদী চিত্র (নারী কে নারী নয় নিজের মা-বোন ভাবতে শিখুন, নারী এক মা একই সত্ত্বা সুতরাং তাদেরকে সন্মান করতে শিখুন,যে স্তন্যের রস তোমার শরীরের রয়েছে সে স্তন্যেত রসের প্রতি তোমার হিংস্র আচরণ কেন?) দিয়ে গন স্বাক্ষর করেন তারা।

গণস্বাক্ষর কর্মসূচীর স্বাধীকার আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক তৌসিব মাহমুদ সোহান বলেন, আমরা চেয়েছি এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে জনসচেতনতা তৈরী এবং মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কে জানতে চেয়েছি। এছাড়াও আমরা একটি মেসেজ দিতে চেয়েছি যে, এরপর থেকে কেউ যেন নারীদের প্রতি কোন সহিংসতা দেখে দাঁড়িয়ে না থেকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে প্রতিবাদ করে।

‘উই আর রিহ্যাসারস’ এর মুখপাত্র আবদুল্লাহ আল নোমান গণ স্বাক্ষর আয়োজনের ব্যাপারে বলেন, ‘উই আর রিহ্যাসারস’ একটি সামাজিক সচেতনতা মূলত দল। যেটি ব্রিটিশ কাউন্সিল এবং দি হাঙ্গার প্রোজেক্ট এর অধীনে সমাজকে সচেতন করার লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরণের সামাজিক সচেতনতা মূলক কাজ করে থাকে।

গণ স্বাক্ষর কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী রাউফুন নাহার সিনথী বলেন, আমরা শুধু যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে স্বাক্ষর করি নি বরং নারীদের সকল ধরণের যৌন হয়রানি না করার প্রতি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ করেছি।

গণ স্বাক্ষর আয়োজনে আরো ছিলেন, স্বাধীকার আন্দোলনের আহসান জোবায়ের, আরাফাত আমান, আসসাইফ সুবর্ন ও উই আর রিহ্যাসার্সের জান্নাতুল ফেরদাউস শাকিল, মুজাহিদুল ইসলাম, নারজিয়া আক্তার, আইরিন আক্তার হিবা ও চুমকি দেবনাথ।