রবিউলের ওপর হামলার বিচার না হলে রাজপথ ছাড়বে না প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা

image

অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগে ডাকসুর পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অনশন করায় দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী রবিউল ইসলামের ওপর হামলার বিচার না হলে রাজপথে থেকে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা।

২৪ মার্চ রোববার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কলাভবনের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ থেকে এ হুঁশিয়ারি দেন তারা। এর আগে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলে দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার রবিউল ইসলামসহ অন্তত ২০ জন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী অংশ নেয়। মিছিলটি কলাভবনের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। সেখানে বক্তব্য রাখেন ইব্রাহিম খলীল, আমজাদ হোসেন প্রমুখ। এ সময় সুরমান আলী, মিতু, তামান্না প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। তারা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী। এর বাইরে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রগতি বর্মন তমা মিছিল ও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় শিক্ষার্থীদের হাতে ‘হামলার দায় প্রশাসন এড়াতে পারে না’, ‘রবিউলের ওপর হামলার বিচার চাই’, ‘হামলায় জড়িতদের অবিলম্বে চিহ্নিত কর’, ‘অবিলম্বে সন্ত্রাসীদের শাস্তি নিশ্চিত কর’ ইত্যাদি প্ল্যাকার্ড দেখা যায়।

সমাবেশে ইব্রাহিম খলীল বলেন, সূর্যসেন হলে রবিউলের ওপর হামলার পরপরই হল প্রাধ্যক্ষ এবং ঢাবি ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দকে আমরা বিষয়টি অবহিত করেছি। তখন প্রাধ্যক্ষ আমাদের লিখিত আকারে অভিযোগ দিতে বললেন। কিন্তু আমরা লিখিত অভিযোগ নিয়ে গেলে তিনি বলেন, অভিযোগ লাগবে না। ইব্রাহিম বলেন, ৫ দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও হামলার বিচারে আমরা ফলপ্রসূ কিছু দেখছি না। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য বিষয়কে যেভাবে অবহেলার দৃষ্টিতে দেখা হয়, রবিউলের ওপর হামলাকেও সেভাবে দেখে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। স্পষ্ট বলে দিতে চাই, সুবিচার না পেলে আমরা প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা রাজপথে থাকব, রাজপথ ছাড়ব না।

আমজাদ হোসেন বলেন, প্রশাসন একটি নির্দিষ্ট দলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছে। আমাদের দাবিগুলো বিবেচনা করছে না। প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর ওপর হামলা হলেও তার বিচার হচ্ছে না। আমরা রবিউলের ওপর হামলাকারীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

প্রসঙ্গত, অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগে ডাকসুর পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অনশনে করার ‘অপরাধে’ গত ১৯ মার্চ দুপুরে মাস্টারদা সূর্যসেন হলে মারধরের শিকার হন রবিউল ইসলাম। বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী রবিউল হলটির আবাসিক ছাত্র। তিনি ডাকসু নির্বাচনে সমাজসেবা সম্পাদক পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। রবিউলের ওপর হামলার প্রতিবাদে পরদিনই রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা। এখন পর্যন্ত হামলাকারীদের চিহ্নিত করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।