জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের মৌন পদযাত্রা

image

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার এক গৃহবধুর উপর নির্মম নির্যাতন এবং সারাদেশে সন্ত্রাস ও যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীরা মুখে কালো কাপড় বেঁধে মৌন পদযাত্রা করেছে।

৬ অক্টোবর মঙ্গলবার সকাল ১১টা নাগাদ ‘সন্ত্রাস ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়’ ব্যানারে এ কর্মসূচীর আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এই পদযাএায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করে।

মৌন পদযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে শুরু হয়ে রায়সাহেব বাজার ঘুরে বাহাদুর শাহ পার্ক, কবি নজরুল সরকারি কলেজ এবং শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ প্রদক্ষিণ করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক এসে শেষ হয়।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করা শিক্ষার্থীরা বলেন, ধর্ষণরোধে শুধু আইন প্রণয়ন মুখ্য বিষয় নয়। প্রয়োজন আইনের যথাযথ বাস্তবায়ন ও সামাজিক আন্দোলন। নারী জাগরণের পথে এধরনের পৈশাচিক কর্মকা- প্রধান বাঁধা। কঠোরভাবে আইন বাস্তবায়নের পাশাপাশি সবাইকে সন্ত্রাস ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিবাদ করতে হবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সন্ত্রাস ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে অবস্থান করছে। দেশে প্রতিনিয়ত ধর্ষণ, নিপীড়ন সংখ্যা বেড়েই যাচ্ছে এবং নির্মমতার মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনার দলমত উর্ব্ধে গিয়ে বিচার করতে হবে। অপরাধীদের শনাক্ত করে কঠোর শাস্তি দেওয়ার দাবি জানাই।

উল্লেখ্য, গত ২ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে তার স্বামীকে পাশের কক্ষে বেঁধে রাখে স্থানীয় বাদল ও তার সহযোগীরা। এরপর গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করে তারা। এ সময় গৃহবধূ বাধা দিলে তাকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে তারা মোবাইলে ভিডিও চিত্র ধারণ করে। ঘটনার ৩২ দিন পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর রোববার (৪ অক্টোবর) বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে।