স্কোপাসে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির ১০০০ গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ

image

গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশের বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠান স্কোপাসে ১০০০ প্রবন্ধ প্রকাশের মাইলফলক স্পর্শ করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। স্কোপাসে গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশের সংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ড্যাফোডিলের অবস্থান তৃতীয়। আর বাংলাদেশের ১৪৪টি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ১৫তম। গত ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ স্কোপাসের ওয়েবসাইটে এসব তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।

স্কোপাসের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের একটি শীর্ষস্থানীয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। ২০১৯ সালে স্কোপাস ইনডেস্ক তালিকায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ৩৪১টি গবেষণা প্রবন্ধ স্থান পায়। একই সময়ে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির ছিল ৩০৬টি এবং নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির ছিল ২৫৪টি। স্কোপাসের তথ্যানুসারে, গত বছর বাংলাদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৪র্থ।

স্কোপাস হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় পিআর রিভিউ ও বৈজ্ঞানিক গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ, বই প্রকাশ ও কনফারেন্স আয়োজক প্রতিষ্ঠান। সারা বিশ্বের ৩ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি প্রতিষ্ঠান ও কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান তাদের গবেষণা কাজ সম্পাদন ও প্রকাশের প্রয়োজনে স্কোপাসকে ব্যবহার করে থাকে।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি তার প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই গবেষণার উপর জোর দিয়ে আসছে। ২০১৭ সালে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির গবেষণা বিভাগ প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টি বিশ্বের বিভিন্ন মর্যাদাপূর্ণ র্যাং কিংয়ে স্থান করে নিতে শুরু করে। স্কোপাসের এই মাইলফলক স্পর্শ করা ড্যফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা বিভাগের অনন্য অর্জন। এই অর্জন ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈজ্ঞানিক গবেষণা প্রবন্ধের উৎকর্ষতা ও গুনগত মানকে নির্দেশ করে। বলার অপেক্ষা রাখেনা, ড্যফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা বিভাগ গবেষণাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে সক্ষম হয়েছে।