অনলাইন গেমসের নামে জুয়ার ব্যবসা

image

রাজধানীর পুরানা পল্টনে ক্রিষ্টাল ১৮৬ ডট কম অনলাইন গেমসের নামে প্রতিষ্ঠান চালু করে সেখানে জুয়ার ব্যবসা করা হত। ওই জুয়ার ব্যবসায় ২ জন জড়িত। তার মধ্যে একজন সাংবাদিক। তিনি টেলিভিশনে অপরাধ বিষয়ক রিপোর্টার হিসেবে কাজ করতেন। তার নাম মাহবুব আলম লাভলু । তিনি ২০১৬ সালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টাস এসোসিয়েশনের সেক্রেটারী ছিল। সর্বশেষ তিনি প্রাইভেট টিভি চ্যানেল ইন্ডিপেন্ডেণ্ট টিলিভিশনে ক্রাইম রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত ছিল। এর আগে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও টিলিভিশনে কর্মরত ছিল। তার ট্রেড লাইসেন্স ইস্যুর ক্রমিক নম্বর -২৯৪৮। লাইসেন্সে পাতার নম্বর-০২০৯০১৪৮। ট্রেডলাইসেন্সে তার পাসপোর্ট সাইজের ছবিও রয়েছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তদন্তে এ জুয়ার আসরের খবর বেরিয়ে আসছে। এ জুয়ার আসর বন্ধ করার জন্য ২০১৮ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি পল্টন থানা পুলিশের পক্ষ থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি মেয়র বরাবর লিখিত আবেদন (যার স্বারক নম্বর-১২৪৭) করা হয়েছিল। সূত্র পল্টন মডেল থানার জিডি নম্বর-১৩১২। এ ভাবে পুলিশ ২০১৭ ও ২০১৮ সাল থেকে মতিঝিল ও পল্টন থানা এলাকার জুয়া খেলা ও ক্যাসিনো বন্ধে নানা পদক্ষেপ নেয়ার পর প্রভাবশালীরা তদবির করে ক্যাসিনো চালাত বলে অভিযোগ রয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি মেয়র বরাবর লিখিত আবেদনে বলা হয়েছে, ৩৭/২ পুরানা পল্টন বক্্রকালভাট রোডস্থ প্রীতম জামান টাওয়ার এর ১৪তম তলার আংশিক ও ১৫তম তলায় ইণ্টারনেটের মাধ্যমে মোঃ দেলোয়ার হোসেন ও মাহবুব আলম লাভলু ২০১৭ সালের ২ অক্টোবর থেকে যৌথ ভাবে ক্রিস্টাল-১৮৬ ডটকম নামীয় অনলাইন গেমস ব্যবসা চালু করে। এ নিয়ে জামান টাওয়ারের বাসিন্দা সাইফুল আলম পুলিশের মতিঝিল বিভাগের ডিসি বরাবর একটি অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে পল্টন মডেল থানা অনুসন্ধান তদন্ত করে জানতে পারে ক্রিস্টাল-১৮৬ ডটকম নামীয় ভিডিও অনলাইন গেমস এর মাধ্যমে জুয়া খেলা পরিচালনা করা হয়। এ নিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে এলাকার আইন শৃংখলা রক্ষার স্বার্থে অনলাইন ক্রিস্টাল-১৮৬ ডটকম নামীয় জুয়া খেলার গেমস তাৎক্ষণিক ভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়। এরপরও বিষয়টি তদন্ত অব্যাহত আছে।

ক্রিস্টাল -১৮৬ ডটকম নামীয় ভিডিও অনলাইন গেমস পরিচালনার জন্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি করর্পোরেশন , খিলগাও জোন থেকে একটি ট্রেড লাইসেন্স নং -২৯৪৮ তারিখ ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর। বই নম্বর-০২০৯০১৪৮। লাইসেন্সধারী তার লাইসেন্সের শর্ত পূরণ করছে কিনা তা যাচাই করে মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

পল্টনের প্রিয়তম জামান টাওয়ারের ৫০ ভাগ অংশের মালিক দেলোয়ার হোসেন পুলিশকে জানায়, পুরানা পল্টনে প্রিতম জামান টাওয়ারের ১৪ তলার আংশিক ও ১৫ তলার অংশের গত ১ অক্টোর-২০১৭ । প্রতিবর্গফুট ১২০ টাকা হিসেবে মাসিক ২ লাখ ৭০ হাজার টাকা ভাড়া হিসেবে নেয় মাহবুব আলম লাভলু । ভাড়া নেয়ার সময় চুক্তিপত্রে অগিম টাকা দেয়ার কথা থাকলেও সে টাকা দেয়নি। এরপর সে ক্রিস্টাল ১৮৬ ডটকম, নামে একটি ট্রেড লাইসেন্স করে। সেখানে অনলাইনের ভিডিও গেমস ব্যবসা করার জন্য। ব্যবসার মূলধন ২ কোটি টাকা দেলোয়ার বিনিয়োগ করে। ব্যবসার লাভের অর্ধেক তাকে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু দেয় নাই। মাহবুব আলম লাভলু তার নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজিও করে এবং তার কাছ থেকে টাকা নিয়ে আর দেয়নি। দেলোয়ার লাভলুর কাছে এখনো এক কোটি টাকার উপরে পাওয়া আছে। সে নিজে ব্যবসা পরিচালনা করে। মাহবুব আলম লাভলী খারাপ ব্যবসা করছে এমন চিন্তা থেকে তিনি আর খারাপ লোকের সঙ্গে ব্যবসা না করার অঙ্গীকার করে ব্যবসা বন্ধ করে দেন। এরপর গত ২০১৮ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি প্রশাসনের লোকের অনুরোধ করলে ব্যবসা বন্ধ করে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে মাহবুব আলম লাভলুর সঙ্গে মুঠোফোনে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তিনি কোথায়ও সাংবাদিক হিসেবে নাম উল্লেখ করেনি। আগে টেলিভিশনে কর্মরত ছিল।