আজিমপুর মেটারনিটি হাসপাতালে ফাতেনুরের টেন্ডারবাজি

image

পুরান ঢাকার আজিমপুর মেটারনিটি হাসপাতালকে ঘিরে টেন্ডার বাণিজ্য গড়ে তুলেছেন ফাতেনুর ইসলাম। তিনি হাসপাতালটিকে এক প্রকার জিম্মি করে সব ধরনের কাজ বাগিয়ে নিচ্ছেন। ছোট-খাটো কাজ থেকে শুরু করে এই হাসপাতালের বড় কাজও করছেন ফাতেনুর। টেন্ডারের মাধ্যমে এসব কাজ করে হাতিয়ে নিচ্ছেন মোটা অংকের টাকা। কেউ তার প্রতিপক্ষ হলেই তার উপর নেমে আসছে নির্যাতনের খড়গ।

২১ মে মঙ্গলবার হাসপাতাল সংশ্লিষ্টরা জানান, বেশ কয়েকবছর ধরে ফাতেনুর আজিমপুর মেটারনিটি হাসপাতালে আধিপত্য বিস্তার করে আসছেন। কেউ তার প্রতিষ্ঠানের (মেসার্স মনার্ক এস্টাবলিস্টমেন্ট) বিরুদ্ধে টেন্ডার জমা দিতে পারে না। অন্য কোন ঠিকাদার সেখানে কাজ পেলেও ফাতেনুরকে মোটা অংকের টাকা ঘুষ দিতে হয়। টেন্ডারের সময় হাসপাতাল ঘিরে তার লোকজন পাহারা দেয়। ফাতেনুর কাজ পেয়ে বিএনপি-জামায়াতকে অর্থ যোগান দেন।

জ্বালাও-পুড়াওসহ একাধিক মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি ফাতেনুর। এসব কাজে তাকে সহযোগিতা করছে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের বহিস্কৃত সাবেক সভাপতি ফুয়াদ হাসান পল্লব, ২৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুর রহমান বাবলা, তার ভাই মেসার্স রোমিও এন্টারপ্রাইজের কর্ণধার মোস্তফাসহ স্থানীয় বেশ কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা। এবিষয়ে ২৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুর রহমান বাবলা জানান, ফাতেনুর এলাকার বড় ভাই। তার টেন্ডার বাণিজ্যে আমাদের সহযোগিতা করার প্রশ্নই আসে না। এবিষয়ে পুলিশের লালবাগ বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান জানান, ফাতেনুর ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।