ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া রোধে নগরবাসীর সহযোগিতা চান ডিএনসিসি মেয়র

image

ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে তিনদিনের বেশ কোথাও পানি জমতে না দিতে নগরবাসীর সহযোগীতা চেয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। ২৫ জুন মঙ্গলবার ডিএনসিসি ৩৫ নং ওয়ার্ডে ডঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বিষয়ক এক প্রচারাভিযানের শুরুতে এই সহযোগীতা চান মেয়র।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাম্প্রতিক জরিপে ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকার মধ্যে ৩৫ নং ওয়ার্ডে (মগবাজার এলাকা) ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়ার বাহক এডিস মশার লার্ভা সবচেয়ে বেশী পাওয়া যায়। নগরবাসীদের উদ্দেশে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা যে যেখানেই থাকি না কেন ঘরের ভেতরে বা বাইরে কোথাও ৩ দিনের বেশী পানি যেন জমতে না দিই। কারণ ৩ দিনের জমে থাকা স্বচ্ছ পানিতে ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া রোগের বাহক এডিস মশা বংশবিস্তার করে। বিশেষ করে ফুলের টব, পরিত্যক্ত টায়ার, ফ্রিজ-এসি থেকে নির্গত পানি, ফেলে দেয়া পাত্র, ডাবের খোসা ইত্যাদিতে পানি যেন জমে না থাকে।

প্রচারঅভিযানকালে বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ, ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান মামুন ও ৩৫ নং ওয়ার্ড মোক্তার সরদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রচারাভিযানটি বেলা ১২টায় রাজধানীর মগবাজার মোড় থেকে শুরু হয়ে নয়াটোলায় গিয়ে শেষ হয়। প্রচার অভিযানের অংশ হিসেবে মগবাজার চৌরাস্তা জামে মসজিদে ৩৫ নং ওয়ার্ডের সকল ইমামকে নিয়ে এক বৈঠক করেন মেয়র।

বৈঠকে ইমামদেরকে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগের কারণ, প্রতিকার ও প্রতিরোধের উপায় সম্পর্কে অবহিত করেন। জুমা নামাজের খোতবার পূর্বে এবং অন্যান্য নামাজের পূর্বে উপস্থিত মুসুল্লিদের ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ সম্পর্কে সচেতনতামূলক উপদেশ দেয়ার জন্য তিনি ইমামদের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন, ইমামদের উপদেশ আমরা গুরুত্ব সহকারে মেনে চলি, তাই জনগণকে সচেতন করার জন্য তাদের ভূমিকা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এ সময় ইমামদেরকে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ সংক্রান্ত তথ্যসম্বলিত লিফলেট ও স্টিকার বিতরণ করা হয়।