পুলিশ পরিচয় দিয়ে ছিনতাইকালে ৩ প্রতারক গ্রেফতার

image

পুলিশ পরিচয় দিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে দুই নারীর কাছ থেকে অর্থ ও স্বর্ণলঙ্কার ছিনিয়ে নেয়ার সময় ৩ প্রতারককে গ্রেফতার করেছে ডেমরা থানা পুলিশ। বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার সময় ডেমরার হাজিনগর বালুরমাঠ এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ৩ প্রতারক হলো মো. রিপন তালুকদার (৩৫), মো. এনাতুল (২৭) এবং মো. সোহাগ (২১)। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) নিদেজের দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে গ্রেফতারকৃতরা। পরে আদালত তাদের জেলে পাঠিয়ে দেয়।

ডেমরা থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ সেলিম জানান, বুধবার ডেমরার হাজীনগর বালুরমাঠ সংলগ্ন এলাকায় দুই নারীর পথরোধ করে ৩ জন। তারা নিজেদের পুলিশ সদস্য পরিদয় দিয়ে অভিযোগ আসে বলে আটক করার ভয় দেখায়। একপর্যায়ে দুই নারীর একজনের কানের র্স্বণলঙ্কার এবং আরেকজনের ব্যাগ থেকে টাকা নিয়ে যায়। এ সময় ওই নারীরা চিৎকার দিলে পাশে থাকা ডেমরা থানা পুলিশের টহল টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ৩ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে দুই নারীর কাছ থেকে নেয়া স্বর্ণলঙ্কার এবং অর্থ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ডেমরা থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃতরা একটি চক্রের সদস্য। তারা নিজেদের পুলিশ সদস পুলিশ পরিচয় দিয়ে পথচারীদের টার্গেট করে আটক করে। এরপর বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতারের ভয় দেখিয়ে টাকাপয়সা এবং দামি জিনিসপত্র পেলে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। ডেমরা এলাকায় তারা দীর্ঘদিন ধরেই ভুয়া পুলিশ সেজে এসব অপকর্ম করে আসছিল। পুলিশ পরিচয় ছাড়াও তারা নিজেদের কখনও কখনও সাংবাদিক পরিচয় দেয়। সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে তারা বিভিন্ন ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়।

পুলিশ জানায়, গ্রেফতারকৃতরা ওই এলাকায় ভাড়া থাকে। প্রতারণা করাই তাদের মূল কাজ। কখনও পুলিশ, কখনও সাংবাদিক, কখনও ম্যাজিস্টেট এভাবে যখন যে পরিচয়ে সুবিধা হয় ওই পরিচয়ে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে টাকা পয়সা হাতিয়ে নেয়। নিজেদের দোষ স্বীকার করে বৃহস্পতিবার তারা আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। আদালত তাদের জেলে পাঠিয়েছে।