ভেঙ্গে ফেলা হলো সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের স্কুল

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়া রেলওয়ে স্টেশনে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য অবৈতনিক শিক্ষাদান কার্যক্রম চালাতো শুভ চন্দ্র দে নামে এক তরুণ। স্টেশনেই একটি টংয়ের দোকানে রাখা হতো ব্ল্যাকবোর্ড, চক, পেন্সিল, খাতা, কলমসহ বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সেই টংয়ের দোকানটি ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। ফেলে দেওয়া হয়েছে শিক্ষা উপকরণগুলো। কাজটি করেছেন চাষাঢ়া স্টেশনের ইনচার্জ খাঁজা মো. সুজন। তবে স্টেশনে অন্যান্য অবৈধ টংয়ের দোকানগুলো ছিল অক্ষত।

ঘটনার সময় স্টেশনে উপস্থিত ছিলেন না শুভ চন্দ্র দে। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তিনি। শুভ বলেন, ‘আমি আজকে বাসায় গিয়েছিলাম। বাসা থেকে এসে দেখি আমার স্কুলটি ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। গত পাঁচটি বছর তিলে তিলে এই স্কুলটা আমি গড়ে তুলছি। আমি নিজে না খাইয়া সেই টাকা বাঁচাইয়া স্কুলটা চালাই। ৭০-৮০টা বাচ্চা পোলাপানরে আমি পড়াই বিনামূল্যে। খাতা-কলম-বইও আমি নিজে কিনে দেই। স্কুলটা আমার সন্তানের মতো। আমাকে ভাইঙ্গা ফালাইলেও এত কষ্ট পাইতাম না।’

শিক্ষক হবার স্বপ্ন দেখা শুভ চন্দ্রের মা মারা যান অষ্টম শ্রেণিতে। নি¤œবিত্ত পরিবারে মায়ের একক সমর্থনে পড়াশোনা চলতো তার। মা মারা যাওয়াতে তা আর এগোয়নি। শিক্ষক হবার স্বপ্নের তাড়না থেকে ২০১৫ সালের মার্চের শুরুতে চাষাঢ়া স্টেশনে স্থাপন করেন একটি টংয়ের দোকান। সেখানেই সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য গড়ে তোলেন লাল সবুজের পতাকা শ্রী শুভ চন্দ্র প্রাথমিক বিদ্যালয়। তখন থেকে সুবিধাবঞ্চিত অর্ধশতাধিক শিশুকে দেওয়া হতো বিনামূল্যে শিক্ষা।

বিকেলে চাষাঢ়া স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, স্টেশনের উচু প্ল্যাটফর্মের পাশেই উল্টে পড়ে আছে শুভর স্কুলের ব্যানার সম্বলিত টংয়ের দোকানটি। তার পাশেই পড়ে আছে কয়েকটি খাতা, কলম ও একটি ব্ল্যাকবোর্ড। পাশেই দাড়িয়ে আছেন শুভ। তার উদাস দৃষ্টি যেন বলছে, টংয়ের দোকানটি নয় উল্টে আছে তার স্বপ্ন।

শুভ চন্দ্র জানান, চাষাঢ়ার এই স্টেশন চত্ত্বরে প্রকাশ্যে মাদক সেবন ও বিক্রি হয়। করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের পর থেকে এর মাত্রা বেড়ে যায়। তার গড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনেও বসতো মাদকের আড্ডা। কয়েকদিন পূর্বে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন শুভ। তার স্কুলের সামনে যেন কেউ মাদক সেবন না করে, এ ব্যাপারে সরাসরি নিষেধ করেন। এই কারণে প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয়েছে তাকে।

কান্নাজড়িত কন্ঠে শুভ বলেন, এই টংয়ের দোকানে সিঙ্গারা বানাইয়া আমি বিক্রি করি। সেই টাকা দিয়া স্কুলটা চালাই। পড়াশোনার জন্য চক, পেন্সিল, খাতা, কলম, ব্ল্যাকবোর্ড সবই দোকানে থাকে। সব ফেলে দিছে স্টেশন মাস্টার। এইখানে যে স্কুলের কার্যক্রম চলে তা সবাই জানে। স্টেশন মাস্টার যদি অবৈধ উচ্ছেদ করতে চাইতো তাহলে আমারে জানাইলে আমি টং সরাইয়া নিতাম। কিন্তু সেটা করে নাই। এই স্টেশনে আরও কয়েকটি টংয়ের দোকান আছে। সবগুলো দোকান ঠিকঠাক আছে। কিন্তু আমার স্কুলের দোকানটা ফেলে দেওয়া হইছে। আমি সরাসরি প্রধানমন্ত্রী ও নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কাছে এর বিচার চাই।’

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী রাকিব নামে এক রিকশাচালক বলেন, ‘স্টেশনের লোকজন আইসা জিজ্ঞাস করছে, এইটা কী? বলছি এইটা স্কুল, এইখানে পোলাপান পড়ায়। তখন একজন বললো, প্ল্যাটফর্মে আবার কিসের স্কুল! এই বলেই সবকিছু ফেলে দেয়।’

এ বিষয়ে জানতে বিকেলে চাষাঢ়া রেলওয়ে স্টেশনের ইনচার্জ খাঁজা মো. সুজনের অফিস কক্ষে তাকে পাওয়া যায়নি। সহকারী স্টেশন মাস্টার নাসরিন আক্তার জানান, তিনি এ বিষয়ে কিছু জানেন না। স্টেশনের ইনচার্জ এখন নেই। আগামী শনিবার পাওয়া যাবে তাকে। চাষাঢ়া রেলওয়ে স্টেশনের ইনচার্জ খাঁজা মো. সুজনের মুঠোফোনের নম্বর চাইলেও তা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন সহকারী স্টেশন মাস্টার নাসরিন আক্তার।

ডিএনসিসিতে মশা নিয়ন্ত্রণে `নোভালুরন’ ব্যবহার শুরু আজ

image

মশা নিয়ন্ত্রণে ডিএনসিসির লার্ভিসাইড ব্যবহারের সিদ্ধান্ত

image

সস্তা ফলে দামি উপকার

image

রাজধানীর ভাটারায় মাদরাসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের সংঘর্ষ

image

স্ত্রীর সহযোগিতায় ছেলেদের ছুরিকাঘাতে বাবা খুন

রাজধানীর হাজারীবাগ বসিলায় ছুরিকাঘাতে লাল মিয়া (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

ময়মনসিংহে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর শারীরিক ও ক্রীড়া প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান উদ্বোধন করেছেন সেনা প্রধান

image

মানবিকতার অনন্য উদাহরণ ওসমানী মেডিকেলের নার্সরা

image

রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভুগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগে ভয়াবহ সেশন জট

image

উত্তরায় ৩০ হাজার পিস ইয়াবাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

রাজধানীর উত্তরা-পশ্চিম থানা এলাকায় ৩০ হাজার পিস ইয়াবাসহ শনিবার (১০ অক্টোবর) তিন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা (ডিবি) উত্তরা বিভাগ। এ সময় ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে।