জলঢাকায় ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণের মামলায় ২জন গ্রেফতার

image

নীলফামারীর জলঢাকায় ৮ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে জলঢাকা থানা পুলিশ । এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা খয়রাত হোসেন বাদী হয় ১০ জুন বুধবার রাতে কারিমুল হোসেন (২৩) নাম এক যুবককে আসামি করে থানায় একটি অভিযাগ দাখিল করেন, মামলা নং-৮। তারিখ ১১.০৬.২০।অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার রাতেই অভিযুক্ত কারিমুলকে জলঢাকা বাসষ্ট্যান্ড এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ । গ্রেফতারকৃত কারিমুল পৌরসভার বগুলাগাড়ী এলাকার বারঘরিপাড়ার সুলতান আলীর ছেলে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ ওই যুবক ললিন নামে আরও একজন ঘটনার সাথে জড়িত বলে জানালে রাতে তাকেও গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত লেলিনের বাড়ীও পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের বারঘরিপাড়া এলাকায়। এজাহার সুত্রে জানা যায়,জলঢাকা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রণির এক ছাত্রীক বিয়ের প্রলোভন দেখিয় দীর্ঘদিন ধরে তাকে ধর্ষন করে কারিমুল। এর এক পর্যায় ওই ছাত্রী গর্ভবতী হয় পরে। পরিবারিক ভাবে বিষয়টি জানাজানি হয়ে পরলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় । অভিযোগে আরো জানা যায়, অভিযুক্ত কারিমুল ছাত্রীটির গর্ভের সন্তানকে নষ্ট করার জন্য বিভিন্ন ভাবে চাপ দিলে এতে রাজি হয়নি ওই ছাত্রী। পরে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছিলো ।

এ বিষয় জলঢাকা থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান জানান অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রথমে কারিমুলকে আটক করি। পরবর্তীতে তার ও ছাত্রীটির জবানবন্দিতে জানতে পারি এ ঘটনার সাথে ললিন নামে একজন জড়িত আছে। পরে তাকেও গ্রেফতার করা হয়। ১১ জুন বৃহস্পতিবার দুপুর গ্রেফতারকৃত দুই যুবককে নীলফামারী জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।