ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক রমিজের বিরুদ্ধে মামলার পর সম্পদ ক্রোক

image

ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) নির্বাহী পরিচালক মো. রমিজ উদ্দিন সরকারের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ ক্রোক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আদালতের আদেশ পেয়ে রোববার (২৭ অক্টোবর) দুদকের একটি টিম রমিজের সম্পদ ক্রোক করেন। এর আগে তার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলা দায়ের করে দুদক।

দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানান গত ৬ অক্টোবর দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ রমিজের বিরুদ্ধে মামলা হয়। মামলার বাদী ছিলেন দুদকের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন। রমিজ উদ্দিন সরকারের বিরুদ্ধে তিন কোটি টাকার জ্ঞাত-আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন, সম্পদের তথ্য গোপন ও অর্থ পাচারের অভিযোগ আনা হয়। মামলার তদন্তের স্বার্থে তার সম্পদ ক্রোক করার আবেদন করেন মামলার বাদী ও তদন্ত কর্মকর্তা। রাজধানী ছাড়াও গাজীপুর ও কুমিল্লাতেও রমিজের সম্পদ রয়েছে। আদালতের আদেশ পেয়ে তদন্ত কর্মকর্তা সম্পদ ক্রোক করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, দুদকে জমা দেয়া সম্পদ বিবরণীতে রমিজ এক কোটি ১৮ লাখ ৯২ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন। এছাড়া দুদকের অনুসন্ধানে তার নামে-বেনামে এক কোটি ৯৫ লাখ ৭৯ হাজার ৮৬৭ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদের তথ্য মিলেছে। অন্যদিকে, মানি লন্ডারিং আইনে তার বিরুদ্ধে দুই কোটি ৬১ লাখ ৭৯ হাজার ৮৬৭ টাকা স্থানান্তর ও রূপান্তরের অভিযোগ আনা হয়েছে। গত বছরের শেষ দিকে রমিজের অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করে দুদক। চলতি বছরের জানুয়ারিতে সম্পদের বিবরণী চেয়ে তাকে নোটিশ পাঠানো হয়। আর গত ৭ মার্চ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক।