বিতর্কিত ডিআইজির ব্যক্তিগত সমস্যা ও বরখাস্ত দুদক পরিচালকের অসুস্থতার কারণে তারা দুদকে অনুপস্থিত ছিলেন

image

পুলিশের বিতর্কিত ডিআইজি (সাময়িক বরখাস্ত) মিজানুর রহমান ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) বরখাস্ত পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছির ব্যক্তিগত ও অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) হাজির হননি। ১ জুলাই সোমবার দুদক উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টচার্য্য এতথ্য জানান। ঘুষ কেলেঙ্কারির (অডিও প্রকাশ) অভিযোগ খতিয়ে দেখতে মিজান ও বাছিরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদক প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে গত ২৪ জুন তলব করে নোটিশ পাঠায় দুদক। সোমবার তাদের হাজির হওয়ার কথা থাকলেও কারণ দেখিয়ে তারা হাজির হননি। এনামুল বাছির অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে হাজির হননি।

অন্যদিকে গত রোববার ডিআইজি মিজান দুদককে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন, তিনি ব্যক্তিগত সমস্যায় আছেন। তাই তার সময়ের প্রয়োজন। পরবর্তী যেকোনো সময় বক্তব্য দিতে আপত্তি থাকবে না। এর আগে গত ২৫ জুন রাতে তাকে বরখাস্ত করে পুলিশ অধিদফতরে সংযুক্ত করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে আদেশ জারি করা হয়। সোমবার তিনি আগাম জামিন নিতে হাইকোর্টে গেলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেয়। তিন কোটি সাত লাখ টাকার সম্পদ গোপন এবং তিন কোটি ২৮ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত ২৪ জুন ডিআইজি মিজানসহ আরো তিনজনকে আসামি করে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলার বাকি তিন আসামি হলো- মিজানুর রহমানের স্ত্রী সোহেলিয়া আনার রত্না, ছোট ভাই মাহবুবুর রহমান ও ভাগ্নে মাহমুদুল হাসান।