সরকারি সম্পদ ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ব্যবহারের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাত করায় দুদকের মামলা

image

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের পদস্ত কর্মকর্তাদের জন্য জরুরী প্রয়োজনে রাখা দুটি গাড়ি ক্ষমতার অপব্যবহার করে পদস্ত কর্মকর্তাদের জন্য রাখা নিজেরা ব্যবহার করে জ্বালানী, মেরামত ও সরংক্ষনের নামে ১ কোটি ১৫ লাখ ৬৩ হাজার টাকা ক্ষতি ও আত্মসাতের অভিযোগে জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের সহকারী পরিচালক মোঃ খলিলুর রহমান সিকদার বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। সমন্বিত জেলা কার্যালয় ১ এর কার্যালয়ে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে(মামলা নং ৫তারিখ ১৭.০৭.১৯) আসামী বিদুৎ শ্রমিকলীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম বিদ্যুত উন্নয়ণ বোর্ডের অডিট বিভাগের সাবেক সহকারী হিসাব রক্ষক এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিন একই দপ্তরের সাবেক স্টোনো টাইপিস্ট কাম কম্পিউটার অপারেটর ।

মামলার এজাহারে বলা হয়, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কাজের স্বার্থে জরুরি প্রয়োজনে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জন্য “স্ট্যান্ডবাই” (ভিআইপি) হিসেবে দুটি গড়ি রাখার দপ্তরাদেশ প্রদান করা হয়। বোর্ডের কাজের স্বার্থে জরুরি প্রয়োজনে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জন্য “স্ট্যান্ডবাই” (ভিআইপি) হিসেবে রাখার দপ্তরাদেশ থাকলেও গাড়ি ২ টির একটি বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিন মিয়া নিজেকে ‘ভিআইপি’ হিসেবে দাবি করে ২০১০ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ব্যবহার করে। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের গাড়ি ব্যবহারের নীতিমালায় প্রাধিকার প্রাপ্ত ব্যক্তি ছাড়া অন্য কোন ব্যক্তিকে গাড়ি প্রদান করা যাবে না মর্মে স্পষ্টভাবে নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু এক্ষেত্রে একটি সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তাদের নামে পাজেরো গাড়ি ২টি সরাসরি বরাদ্দ সংক্রান্ত কোন পত্র পাওয়া যায়নি। শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তারা প্রভাব খাটিয়ে গাড়ি দুটি ব্যবহার শুরু করেন এবং প্রায় ১০ বছর পর্যন্ত গাড়ি দুটি ব্যবহার করেন। ২০১৭ সালে শ্রমিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন মিয়া এবং ২০১৮ সালে সংগঠনের সভাপতি জহিরুল ইসলাম চৌধুরী চাকরি হতে অবসরে যান। তারপরও তারা গাড়ি ২ টি পুলে জমা প্রদান করেননি। এ সংক্রান্ত দুদক হটলাইন-১০৬ এ একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুদক টিম গত গত ১২ ফেব্রুয়ারী ত মোঃ আলাউদ্দিন মিয়া কর্তৃক ব্যবহৃত গাড়ি নম্বর ঢাকা মেট্টো-ঘ-১১-২৮২৭ এবং জহিরুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক ব্যবহৃত পাজেরো গাড়ি নম্বর সিলেট-ঘ-০২-০০৩৩ উদ্ধার করে নিয়ে আসে এবং গাড়ি ২টি বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডকে বুঝিয়ে দেয়া হয়।

এর আগে গত ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি দুদকের হস্তক্ষেপে জহিরুল ইসলাম চৌধুরী ও আলাউদ্দিন মিয়ার কাছ থেকে গাড়ি দুটি জমা নেয়া হয়। জহিরুল ইসলাম চৌধুরী সিলেট মেট্রো-ঘ-০২-০০৩৩ নম্বরের পাজেরো গাড়িটি ১০ বছর ধরে ব্যবহার করেছেন। তিনি ২০১৮ সালের ৬ জুন অবসরে যান। জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের (বি-১৯০২) সভাপতি হওয়ার কারণে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবসরের পরেও গাড়িটি ব্যবহার করেছেন।

অন্যদিকে, পিডিপির প্রাক্তন স্টেনো টাইপিস্ট ও সিবিএর প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন ২০১৭ সালের আগস্টে অবসরে যান। তিনি পিডিবির নকশা ও পরিদর্শন পরিদপ্তরের স্টেনো টাইপিস্ট ছিলেন। তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী হয়েও তিনি গাড়িটি ব্যবহার করেছেন। মো. আলাউদ্দিন মিয়া কর্তৃক ব্যবহৃত গাড়ি নম্বর ঢাকা মেট্টো-ঘ-১১-২৮২৭।

আমানত হিসেবে রাখা ইয়াবা সেবন করে ফেলায় বন্ধুকে হত্যা

image

নুসরাত হত্যাকাণ্ডে কোন আসামির কি কাণ্ড ছিলো!

image

হত্যা মামলায় ৭ দিনের রিমান্ডে ক্যাসিনো খালেদ

image

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি : আবরার পানি চেয়েছে দেওয়া হয়নি, হাসপাতালে নেওয়ার কথা বলা হয়েছে কিন্তু নেয়নি বড় ভাইয়ারা

image

মা ইলিশের লালসায় নদীতে লুঙ্গি পড়া জেলের সাজে আটক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় নি প্রশাসন

image

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও ভোগদখলের অভিযোগে খালেদ-শামীমের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

image

টং এর দোকানদার টু ঢং এর কাউন্সিলর ভায়া কোন এক সাবেক প্রতিমন্ত্রী

image

স্পর্শ ছাড়াই ঘুষের টাকা স্ত্রীর কাছে পৌঁছে যেতো

image

তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারীর বিরুদ্ধে দেশে বিদেশে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ

image