৫ দিনে প্রবাসীদের হটলাইনে সহস্রাধিক অভিযোগ

image

প্রবাসীদের জন্য দুর্নীতি সংক্রান্ত অভিযোগ জানানোর জন্য দেয়া টেলিফোনে নাম্বার চালুর পর ৫ দিনে সহস্রাধিক অভিযোগ পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি টেলিফোন নম্বর চালুর প্রথম ২ দিনে শতাধিক ফোন কলে অভিযোগ শুনেছে দুদক। তবে এসব অভিযোগের অধিকাংশই দুদকের তফসিলভুক্ত অপরাধের বাইরে হওয়ায় দুদক সরাসরি ব্যবস্থা নিতে পারেনি। অভিযোগগুলো স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে সমাধানের উদ্যোগ নেয় দুদক। এদিকে দুদকের তফসিলভুক্ত অপরাধের বিষয়ে অভিযোগ জানতে দুদক থেকে নতুন নম্বর সংযোগ করা হয়েছে। +৮৮০৯৬১২১০৬১০৬ নতুন এ টেলিফোন নম্বরে বাংলাদেশ সময় সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত অভিযোগ জানাতে পারবে প্রবাসীরা। তবে অভিযোগ অবশ্যই দুদকের তফসিলভুক্ত হতে হবে।

দুদক সূত্র জানায়, রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) থেকে বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির বিষয়ে প্রবাসীদের অভিযোগ জানানোর জন্য কমিশনের হটলাইনে আন্তর্জাতিক ‘কল ইনকামিং সার্ভিস’ চালু করা হয়েছে। ফলে এখন থেকে প্রবাসীরা সহজেই ‘+৮৮০৯৬১২১০৬১০৬’ নম্বরে অফিস চলাকালে (স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত) ফোন কল করে সরাসরি তাদের অভিযোগ জানাতে পারবেন।

উল্লেখ্য, গত বুধবার ১৮ ফেব্রুয়ারি দুদক জরুরি ভিত্তিতে একজন কর্মকর্তার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রবাসীদের অভিযোগ গ্রহণের ব্যবস্থা করেছিল। এর মাধ্যমে মাত্র ২ দিনেই অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন, সৌদি আরব, আরব আমিরাত, কুয়েত, কাতার, মালোয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে বসবাসরত বাংলাদেশি প্রবাসীদের শতাধিক ফোন কল পাওয়া যায়। এসব ফোন কলের অধিকাংশই প্রবাসীদের জায়গা-জমি, দোকানপাট, এলাকার আইনশৃঙ্খলা, ট্রাভেল এজেন্সির অনিয়ম এবং আকামা সংক্রান্ত। তবে দুদক সূত্র জানায় এ জাতীয় অধিকাংশ অভিযোগই দুদক আইনের তফসিলভুক্ত নয়।

দুদক সূত্র জানায়, দুদকের হটলাইন (১০৬) নম্বরে বিদেশ থেকে কেউ ফোন করে অভিযোগ জানানোর সুযোগ না থাকায় নতুন এ নম্বর চালু করে দুদক। গত বুধবার থেকে এ নম্বর চালু করা টেলিফোন নম্বরটি ছিল +৮৮০১৭১৬-৪৬৩২৭৬। ওই নম্বর দুদকের পরিচালক (গণমাধ্যম) প্রণব কুমার ভট্টচার্যের কাছে ছিল। তিনি প্রবাসীদের অভিযোগ শুনে তা কমিশনের সংশ্লিষ্ট দফতরে রিপোর্ট করতেন। ওই নম্বরে গত ৫ দিনে যেসব অভিযোগ এসেছিল তা অধিকাংশ ছিল দুদকের তফসিলভুক্ত অপরাধের বাইরে।

দুদকের তফসিলভুক্ত অপরাধের মধ্যে ঘুষ লেনদেন, ঘুষের জন্য হয়রানি, সরকারি সেবা প্রদানে ঘুষ, দুর্নীতি, অবৈধ সম্পদ, অর্থপাচার রয়েছে। এসব অভিযোগের বিষয়ে সরাসরি দুদক অনুসন্ধান করে দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করতে পারে। তবে সরকারি জমি দখল হলে বা সরকারি সম্পদের অপব্যবহার হলেও দুদক অনুসন্ধান করতে পারে। কিন্তু ব্যক্তি পর্যায়ে সম্পত্তিগত বিরোধ, চুরি- ডাকাতির ক্ষেত্রে দুদকের কোন কিছু করার নেই। তবে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত পরিসেবায় কোন ঘুষ লেনদেন হলে দুদক এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দফতরের সঙ্গে কথা বলে অনুসন্ধান করতে পারে।

দুদক সূত্র জানায়, ২০১৭ সালের ২৭ জুলাই হটলাইন-১০৬ চালু হয়। যেখানে সারাদেশের মানুষ দুদকের তফসিলভুক্ত দুর্নীতির বিষয়ে অভিযোগ করেন। এর ভিত্তিতেই প্রতিদিন বিভিন্ন অভিযানে অংশ নেয় দুদকের এনফোর্সমেন্ট টিম।

আওয়ামী লীগ নেতা ডাবলুর অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধান করবে দুদক

image

দক্ষিনের কাউন্সিলর ফরিদ উদ্দিন রতনকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

image

ছদ্মবেশে পাসপোর্ট প্রত্যাশী দুদকের নিকট সরাসরি ঘুষ দাবি

image

দৈনিক পত্রিকার ওয়েবসাইটগুলোর নকলকারী ও বানোয়াট সংবাদ প্রচারক গার্ডিয়ানের এমডি গ্রেফতার

image

নাম অপ্রকাশিত এক সরকারি কর্মকর্তা মোটা ঘুষ লেনদেনে প্রমাণিত

image

শিক্ষার প্রকৌশল বিভাগের ৩ জনের বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান

image

জি কে শামীমের অবৈধ কজের সহযোগী হয়ে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুই প্রকৌশলীসহ তিনজনকে দুদকের তলব

image

কিশোরগঞ্জের এমপি আফজালের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের নেমেছে দুদক

image

জি কে শামীমের বিরুদ্ধে অভিযোগের অনুসন্ধানে ব্যবসায়ী মোমতাহিদুরকে জিজ্ঞাসাবাদ

image