নিজেকে নিয়ে ছবি বানাবেন ম্যাডোনা

image

নিজের জীবন ও ক্যারিয়ার নিয়ে ছবি বানাবেন পপ তারকা ম্যাডোনা। সম্প্রতি দিয়েছেন এই ঘোষণা। ছবিটি তিনিই পরিচালনা করবেন। এখন তিনি ডায়াব্লো কোডির সঙ্গে এর চিত্রনাট্য রচনার কাজ করছেন। জুনা ও ইয়ং অ্যাডাল্টের কাহিনী লিখে অস্কার জিতেছিলেন কোডি।

মিশিগান থেকে নিউইয়র্কের বস্তি এবং সেখান থেকে “লাইক আ ভার্জিন” ও ভোগ” এর মত গানের সুবাদে কীভাবে তিনি বিশ্বতারকা হয়ে উঠলেন - তা নিয়েই ছবির কাহিনী বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।

ম্যাডোনা জানান ছবিতে তার গানের জীবনই গুরুত্ব পাবে। তিনি বলেন, ‘গান আমাকে চালিয়েছে এবং শিল্প আমাকে বাঁচিয়ে রেখেছে।’পরিচালক হিসেবে এটি ম্যাডোনার তৃতীয় ছবি। এর আগে ২০০৮ এ ফিল্থ অ্যান্ড উইজডম এবং ২০১১-তে উই পরিচালনা করেন। উই ছিল ওয়ালিস সিম্পসনের সঙ্গে রাজা অষ্টম এডওয়ার্ডের সম্পর্ক নিয়ে বানানো।

তার দ্বিতীয় ছবিটি কোনো সাড়া জাগাতে পারেনি। ১ কোটি ১০ লাখ ডলার খরচ করে ওঠে মাত্র ২০ লাখ ডলার। তার নতুন ছবির নাম কী হবে এখনো তা ঠিক হয়নি।

তবে জীবনীভিত্তিক ছবির বাজার রমরমা। এল্টন জনকে নিয়ে বানানো রকেটম্যান এবং ফ্রেডি মার্কারিকে নিয়ে বানানো চলচ্চিত্র বোহেমিয়ান রাফসোডির বিশাল সাফল্য সেটিই বলছে। এর আগে ম্যাডোনার অনুমতি না নিয়ে তার জীবনীভিত্তিক ছবি বানাতে গিয়ে তার রোষের মুখে পড়েছিল ইউনিভার্সাল পিকচার্স।

তবে তার এ ছবির সম্ভাব্য ব্যয় বা সময়সূচি সম্পর্কে কিছুই জানান তিনি। ইনস্টাগ্রামে কাহিনী লেখার মুহূর্তের ছবি দিয়েছেন এই তারকা। ভক্তদের একটি প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘পুরুষের দুনিয়ায় শিল্পী হিসেবে তার বেঁচে থাকার সংগ্রাম’ নিয়েই ছবির কাহিনী যেখানে ‘সুখ, দুঃখ, পাগলামো, ভাল, খারাপ এবং বিশ্রী’ এ সব ব্যাপারই থাকবে। তিনি আরও জানান, এতে শিল্পী জো-মিশেল বাসকিয়ার সাথে তার সম্পর্কের বিষয়টি থাকবে। তার সঙ্গে লাইক এ ডায়মন্ড এবং এভিটার ভিডিওর কাজ চলার সময় থেকে দুরত্ব তৈরি হয়।

তার পরিচালনার ভূমিকার বিষয়টি নিশ্চিত করে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “আমি আপনাদের জানাতে চাই একজন শিল্পী, সংগীতশিল্পী, নৃত্যশিল্পী - একজন মানুষ হিসাবে এই পৃথিবীতে বেঁচে থাকা তা নিয়েই আমি ছবি বানানোর একটি অবিশ্বাস্য যাত্রা শুরু করেছি।”