বিশ্বকবির ১৫৯তম জন্মজয়ন্তী পালন

image

আজ পঁচিশে বৈশাখ কোন প্রকাশ্য অনুষ্ঠান ছাড়াই পালিত হচ্ছে উদার বিশ্ববোধের কবি, বাঙ্গালির আত্মার মুক্তি ও সার্বিক স্বনির্ভরতার প্রতীক কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মদিন।

আজ থেকে ১৫৬ বছর আগে ১২৬৮ বঙ্গাব্দের পঁচিশে বৈশাখ এবং ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দের ৬ মে (বাংলা বর্ষপঞ্জি পরিবর্তনে এখন বাংলাদেশে ৮ মে) কলকাতার জোড়াসাঁকোর বিখ্যাত ঠাকুর পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। আর ১৯৪১ সালে দীর্ঘ রোগভোগের পর কলকাতার পৈত্রিক বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার লেখা ‘আমার সোনার বাংলা/আমি তোমায় ভালোবাসি,..’ বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত। মুক্তিযুদ্ধের সময়ও প্রেরণা যুগিয়েছিল তার অনেক গান। তার লেখা ‘জনগণমন-অধিনায়ক জয় হে’-গানটি ভারতের জাতীয় সঙ্গীত।

করোনা ভাইরাসের মহামারির কারনে ঘরের বাইরে কোন অনুষ্ঠান না করে অনেক সংগঠন অনলাইনে বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রচার করছে। আজ সকালে বিভিন্ন টিভি চ্যানেল রবীন্দ্র জন্মোৎসব পালনের জন্য প্রভাতি অনুষ্ঠানে এবং দিনের বিভিন্ন সময়ে রবীন্দ্রনাথের গান, কবিতা আবৃত্তিসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড প্রচার করছে।

দেশের খ্যাতিমান সাংস্কৃতিক সংগঠন ছায়ানট আজ সকালে সংগঠনের ওয়েবসাইটে রবীন্দ্র জয়ন্তী অনুষ্ঠান প্রচার করেছে। ছায়ানটের প্রধান প্রফেসর সনজীদা খাতুলের পরিচালনায় এ অনুষ্ঠানে ছিল রবীন্দ্রনাথের বিভিন্ন সৃষ্টিকর্ম তুলে ধরা হয়। এছাড়া বাংলাদেশে ভারতীয় হাইকমিশন অনলাইনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে। রবীন্দ্র সঙ্গীত নিয়ে ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাসসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা আলোচনায় অংশ নেন।

কবিগুরুর জন্মদিনে আলাদা আলাদা বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।