download

বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০

ধর্মনিরপেক্ষ দলের ‘ব্যার্থতা’

ভারতজুড়ে গুরুত্ব বাড়ছে ওয়াসির মুসলিম দলের

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

ঐতিহাসিকভাবে মোদাচ্ছের নজরদের পরিবারের সমর্থন ছিল ধর্মনিরপেক্ষ রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি। কিন্তু এবারের বিহারের নির্বাচনে তারা ভোট দিয়েছে অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদ-উল-মুসলিমিন (আইমিম) এর প্রার্থীকে।

আইমিম ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়সহ বিভিন্ন প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পক্ষে কথা বলে। নজর জানান তাদের বোহিতা গ্রামের প্রায় সবাই এবার আইমিমকে ভোট দিয়েছে। গ্রামটি বিহারের সীমাঞ্চল প্রদেশের কিষাণগঞ্জে। আইমিম এবার বিহারের পাঁচটি আসনে জিতেছে যেগুলোর অধিকাংশ ভোটার মুসলমান। নেপাল ও বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত এই আসনগুলোর ভোটাররা বলছেন, ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলা রাজনৈতিক দলগুলো দশকের পর দশক ধরে তাদের উপেক্ষা করেছে।

নজর বলেন, “এখানে মানুষের মনে একটা ধারণা হয়েছে, কংগ্রেসের মতো ধর্মনিরপেক্ষ দলগুলো মুসলমানদের সঙ্গে বেঈমানি করেছে।”

তিনি বলেন, বিরোধিতা তো দূরের কথা, সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে সরকারের নেওয়া কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে টু শব্দটি করেনি তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষ দলগুলো। সেখানে আইমিম সবসময়ই সোচ্চার ছিল। দৃশ্যত তারা এই সম্প্রদায়ের আস্থা অর্জন করেছে।

১৩০ কোটি জনসংখ্যার ভারতের ১৪ শতাংশ মুসলিম। রাষ্ট্রপরিচালনায় জনসংখ্যা অনুপাতে প্রতিনিধিত্ব নেই তাদের। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তারা আরো প্রান্তিক হয়ে পড়েছে। এবারই প্রথম বিহারের মন্ত্রীসভায় কোনো মুসলমান নেই। ভারতের দ্বিকক্ষবিশিষ্ট আইনসভার নিম্নকক্ষে ৫৪৩ সদস্যের মধ্যে মুসলমান মাত্র ২৭ জন, অর্থাৎ ৪ শতাংশের কম। তাও আগেরবারের চেয়ে চারজন বেড়েছে। গত সংসদে, অর্থাৎ ২০১৪ সালে নির্বাচিতদের মধ্যে মুসলমানদের প্রতিনিধিত্ব ছিল সবচেয়ে কম।

২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে মোদি সরকার যেসব আইন করেছে, তার বেশ কয়েকটি মুসলমানদের প্রতি বৈষম্যের উদ্দেশ্যে করা হয়েছে বলে সমালোচনা চলছে ভারতে। গত বছর বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন প্রণয়নের পর থেকে দেশব্যাপী বিক্ষোভ শুরু হয়। এই আইনের বিরোধীরা বলছেন, এই আইন ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

গত বছর অগাস্ট মাসে মোদী সরকার কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করে এবং এর পরের ছমাস রাজ্যটিকে বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়। কিন্তু কংগ্রেসের মতো যেসব বিরোধী দলগুলোকে মুসলমানেরা সবসময় সমর্থন দিয়ে এসেছে, তারা মুসলমানদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রধান প্রধান বিষয়গুলোতে চুপ থেকেছে।

কয়েক দশক ধরে শুধু হায়দ্রাবাদকেন্দ্রিকই ছিল আইমিম। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মুসলমান অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে তাদের কার্যক্রম সম্প্রসারিত করতে পেরেছে, রাজনৈতিক অধিকার হরণের বিষয়ে তাদের হতাশাকে কাজে লাগিয়ে।

আইমিমের নেতৃত্বে রয়েছে আসাদউদ্দিন ওয়াইসি। চারবারের নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য সংসদে এবং টিভি টকশোতে তুখোড় আলোচক হিসেবে খ্যাতি কুড়িয়েছেন। তিনি এখন মুসলমানদের দাবিদাওয়ার প্রধান কণ্ঠস্বরে পরিণত হয়েছেন।

আইমিম বরাবরই ভারতের অপরাপর বিরোধী দলগুলোর বিরুদ্ধে মোদি হিন্দুত্ববাদী নীতির বিরুদ্ধে কথা না বলার অভিযোগ করে থাকে। জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অবিনাশ কুমার বলেন, “ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ দলগুলো ভোটের রাজনীতির কারণে সংবিধানবিরোধী হওয়া সত্ত্বেও বিজেপির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কথা বলছে না। এ কারণেই মুসলমানদের বিভিন্ন অংশ আইমিমের দিকে ঝুঁকছে। তারা একে বিজেপি-বিরোধী শক্তি হিসেবে দেখছে।” তিনি বলেন তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষতাবাদী দলগুলো প্রান্তিক জনগোষ্ঠীসমূহের দুঃখ ভুলে নিজেদের সংখ্যাগরিষ্ঠের প্রতিনিধি হিসেবে প্রতিষ্ঠার প্রতিযোগিতায় ব্যস্ত। ফলে খুব স্বাভাবিক যে তাদের সমস্যাগুলো নিয়ে একটি দল দাঁড়িয়ে গেছে।

বিহারভিত্তিক গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিক মাজিদ আলম আলজাজিরাকে বলেন, “বিহারের সাম্প্রতিক নির্বাচনেও কংগ্রেস পার্টি ও তাদের মিত্র রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) মুসলমানদের ইস্যুগুলো এড়িয়ে গেছে। বরং তারা কথা বলেছে কর্মসংস্থান, উন্নয়ন এসব বিষয় নিয়ে। কেননা সংখ্যালঘুর পক্ষে কথা বলে সংখ্যাগুরুর ভোট তারা হারাতে চায়নি।

তাই এবার মুসলমানেরা ভেবেছে এখন সময় এসেছে কোনো একটি ইসলামী দলের পেছনে একতাবদ্ধ হওয়া, যারা তাদের কথা বলে।” সেকারণেই, যদিও মুসলমানদের অধিকাংশ এখনো ধর্মনিরপেক্ষ দলগুলোকে ভোট দেয়, তবু ভাবা হচ্ছে আইমিম সর্বভারতের মুসলমানদের মধ্যে সাড়া ফেলতে সমর্থ হবে।

আইমিমের মুখপাত্র ওয়ারিস পাঠান বলেন, “আমরা মুসলমানসহ যত সংখ্যালঘু সম্প্রদায় আছে, তাদের ওপর যে অন্যায়-অবিচার হয় তার প্রতিবাদ করছি, ভোটে যার প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে।”

এবার এই দল পাঁচ লাখ ভোট পেয়েছে। ২০১৫ সালের রাজ্যসভার নির্বাচনে যেখানে সাকুল্যে তাদের ভোট পড়েছিল ৮০ হাজারের মতো। সেবার বিহারে তারা কোনো আসনই পায়নি।

পাঠান বলেন, “বিহার কোনো আকস্মিক ঘটনা নয়। আমরা যেখানেই অংশ নিয়েছি আগের তুলনায় ভালো করেছি। মহারাষ্ট্রে গতবার আমাদের ভোট উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে। আমরা বেশ কটি আসনও পেয়েছি।”

দলের কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ আসিম ওয়াকার এখানেই থামতে চান না, তিনি বলেন, “আমরা শুধু যে মুসলমানদের প্রতিনিধিত্বকারী দল তা না, আমরা গোটা ভারতের জন্যই একটি কার্যকর বিকল্প হতে পারি।”

তিনি বলেন, “আমরা নিজেদের শুধু মুসলমানদের দল বলি না। কেননা আমরা শুধু যে মুসলমান অধ্যুষিত এলাকায় জিতেছি তা নয়। আমরা হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ এলাকাতেও জিতেছি, যেখানে মুসলমানেরা সংখ্যায় কম, দলিতেরা আমাদের ভোট দিয়েছে।”

বিহারের নির্বাচনে আইমিম জোট করেছিল বহুজন সমাজ পার্টি (বিএসপি) এবং রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টির (আরএলএসপি) সঙ্গে। এ দুটি দল প্রান্তিক বর্ণের মানুষদের প্রতিনিধিত্ব করে।

মহারাষ্ট্রেও ২০১৯ সালে সাধারণ নির্বাচনে আইমিম দলিতদের সঙ্গে জোট করেছিল এবং নিজেদের ঘাটি হায়দ্রাবাদের বাইরে তারা প্রথমবারের মতো কোনো আসনে জেতে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন আইমিমের এই উত্থান মুলত ওয়াইসির ক্যারিশমার কারণে। তিনি ভারতের মুসলমান তরুণদের আশা, আকাঙ্ক্ষাকে ধারণ করতে সমর্থ হয়েছেন। কলকাতার আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাাংবাদিকতার সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ রিয়াজ বলেন, “তার মতো অভিব্যক্তি, শৈলী ও ভাষার আর কেউ নেই বর্তমান রাজনীতিতে। সেগুলোই আইমিমের জনপ্রিয়তার একটি বড় কারণ।” শেরওয়ানি, পাঞ্জাবি, টুপিতে ৫১ বছর বয়সী এই নেতাকে দেখা যায় প্রাইম টাইম নিউজে, টকশোতে ঝড়ো বিতর্ক করতে।

এছাড়া তিনি সংসদেও ভালো কথা বলেন। তিনি বেশ দাপট নিয়ে কথা বলেন এবং সংসদে যাওয়ার আগে পড়াশোনা করে যান।

জেএনইউর অবিনাশ কুমার বলেন, “তিনি মুসলমান ভোটারদের মন কেড়ে নিয়েছেন, যার ফল দেখা যাচ্ছে তাদের নির্বাচনী ফলে।” তবে আইমিমের বিরুদ্ধে বিরোধী দলগুলোর অভিযোগ, তারা বিজেপিকে সুবিধে পাইয়ে দিতে মুসলমান ভোট ভাগ করে দেওয়ার রাজনীতি করে।

কংগ্রেস নেতা মীম আফজাল আলজাজিরাকে বলেন, “বিজেপি ধর্মের ভিত্তিতে মানুষকে পৃথক করার রাজনীতি করে, আইমিমও তাই করছে।”

তিনি বলেন, তারা কোনো কিছুই অর্জন করতে পারবে না, শুধু মুসলমানদের ভোট ভাগ করে বিজেপিকে ক্ষমতায় আনা ছাড়া। তবে এসব সমালোচনার তোয়াক্কা না করেই আইমিম এখন তাকিয়ে আছে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনের দিকে, যেখানে মুসলমানেরা মোট ভোটারের ২৭ শতাংশ।

আলজাজিরাকে বিহার রাজ্যে আইমিমের যুব সংগঠনের প্রেসিডেন্ট আদিল হাসান আজাদ বলেন, “পুরো ভারতে অবস্থান গড়াই লক্ষ্য আমাদের।”

মানুষের দ্বিধাদ্বন্দ্বের কারণে ভারতের টিকা কর্মসূচির লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি

image

করোনায় তৃতীয় সর্বোচ্চ দৈনিক মৃত্যু দেখল যুক্তরাজ্য

image

জো বাইডেনের অভিষেকেই ডজনখানেক নির্বাহী আদেশ আসছে

image

রাশিয়ার এস-৪০০ কেনায় ভারতকে নিষেধাজ্ঞার হুমকি

image

যুক্তরাষ্ট্রে বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানে সহিংসতার শঙ্কা,সতর্কতা জারি

image

ইন্দোনেশিয়ার ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৬

image

দূরপাল্লার মিসাইলের মহড়া ইরানের

image

‘বর্তমানে দুই দশকের মধ্যে আফগানিস্তানে মার্কিন সেনা সংখ্যা সবচেয়ে কম’

image

‘করোনা নেগেটিভ’ সনদ বাধ্যতামূলক হচ্ছে যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করতে

image

ফ্রেঞ্জ-তার্কিশ সম্পর্কে নতুন মোড়: এরদোয়ানকে চিঠি দিলেন ম্যাক্রোঁ

image

ফাইজারের টিকা: নরওয়েতে টিকা নেওয়ার পর ২৩ জনের মৃত্যু

image

ভারতজুড়ে গণ টিকাদান কার্যক্রম শুরু হলো আজ

image

বাইডেনের অভিষেকের দিন সকালে ওয়াশিংটন ছাড়বেন ট্রাম্প

image

যুক্তরাজ্য ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি

image

বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমিতর সংখ্যা ৯ কোটি ৪৩ লাখ ছাড়াল

image

ট্রাম্পের অভিশংসন: সাবেক রাষ্ট্রপতিকে অযোগ্য ঘোষণা করা যায়?

image

ভারতের কর্ণাটকে টেম্পো-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ১১

image

ট্রাম্পের অভিশংসন: এরপর কি?

image

শনিবার ভারতে টিকা কর্মসূচি শুরু: উদ্বোধন করবেন মোদী

image

কঙ্গোতে উগ্রবাদী হামলা: নিহত ৪৬

image

বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানের মহড়া স্থগিত

image

যুক্তরাজ্যে ১৪ বছ‌রের বালকের হাতে বাংলা‌দেশি বং‌শোদ্ভূত ব্যবসায়ী খুন

image

শেষ সময়ে চীনের ওপর ট্রাম্প প্রশাসনের আরও নিষেধাজ্ঞা

image

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী অস্ত্র দেখালো উত্তর কোরিয়া

image

করোনাকালীন প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করলেন বাইডেন

image

ইন্দোনেশিয়ায় সুলাওসি দ্বীপে ভূমিকম্পে নিহত ৩৫

image

বাইডেনের প্রশাসনে কাজ করবেন এক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত

image

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এক কোটিরও বেশি মানুষ ভ্যাকসিন নিয়েছে

image

ইথিওপিয়ায় সশস্ত্র হামলা : নিহত ৮০

image

ভাইরাসের উৎসের খোঁজে উহানে ডব্লিউএইচও’র বিশেষজ্ঞরা

image

দ. কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্টের ২০ বছরের কারাদণ্ড

image

মালিতে উগ্রবাদী হামলায় জাতিসংঘের তিন শান্তিরক্ষী নিহত, আহত ছয়

image

দ্বিতীয়বার অভিশংসিত ট্রাম্প, সেনেটে নির্ধারিত হবে ভাগ্য

image

কলকাতায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড: বস্তি পুড়ে ছাই

image

মার্চেই সিঙ্গেল ডোজের করোনা ভ্যাকসিন

image

ট্রাম্পের বিদায় উদযাপন করছে ইরান: রুহানি

image

যুবকরা প্রথম: টিকা দেয়ার ‘উল্টো’ নীতি ইন্দোনেশিয়ার

image

ফিলিস্তিনিদের ওপর জাতিগত বৈষম্য: ইসরায়েলি মানবাধিকার সংস্থার প্রতিবেদন

image

ট্রাম্পের অভিশংসনে ভোট দেবেন বেশ কয়েকজন রিপাবলিকান

image

মার্কিন রাজনীতিতে অস্থিরতা : সতর্কাবস্থায় বিভিন্ন নিরাপত্তা বাহিনী

image

স্পেনে তাপমাত্রা -২৫ সেলসিয়াস, ৭ জনের মৃত্য

image

আত্মঘাতী হওয়ার চিন্তা করেছেন অর্ধেক আইসিইউ কর্মী: গবেষণা

image

ট্রাম্পকে অভিশংসনের প্রস্তাব নাকচ করলেন পেন্স

image

মার্কিন বাহিনী কমান্ডার ইন চিফ হিসেবে বাইডেনের নাম ঘোষণা করল

image

ডেমোক্র্যাটদের অভিশংসন প্রচেষ্টা হাস্যকর: ট্রাম্প

image

ইরান আল কায়েদার নতুন ঘাঁটি : পম্পেও

image

বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা ১৯ লাখ ৭০ হাজার ছাড়াল

image

ভারতে টিকা পরিবহনের কাজ শুরু

image

নতুন কৃষি আইন স্থগিত করে দিয়েছে ভারতের সুপ্রীম কোর্ট

image

করোনা ভ্যাকসিন রফতানির সিদ্ধান্ত কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই: জয়শঙ্কর

image

ভারত সরকারের কাছে প্রতি ডোজ টিকা ২০০ রুপিতে বিক্রি করেছে সেরাম

image

চীন মার্কিন দূতের তাইওয়ান সফর নিয়ে ক্ষুব্ধ

image

করোনা প্রতিরোধে মালয়েশিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি

image

দৃষ্টিহীন লেখক বেদ মেহতা আর নেই

image

প্রায় দেড়গুণ বেশি দামে অক্সফোর্ডের টিকা কিনছে বাংলাদেশ

অক্সফোর্ডের করোনাভাইরাস টিকার প্রতি ডোজ চার ডলার মূল্যে বাংলাদেশকে সরবরাহ করবে ভারতের

যুক্তরাষ্ট্রে গরিলার দেহে করোনা সংক্রমণ

image

প্রচণ্ড শীতের মধ্যেও বসনিয়া সীমান্তে অবস্থান নিয়েছে শরণার্থীরা

image

ট্রাম্পপন্থিদের আরও সহিংসতার আশংকায় এফবিআই

image

লাদাখে আটক চীনা সেনাকে ফিরিয়ে দিল ভারত

image

চীনের স্বর্ণের খনিতে বিস্ফোরণ : ২২ শ্রমিকের মৃত্যুর শংকা

image

কলকাতায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড: বস্তি পুড়ে ছাই

image

মার্চেই সিঙ্গেল ডোজের করোনা ভ্যাকসিন

image

ট্রাম্পের বিদায় উদযাপন করছে ইরান: রুহানি

image

যুবকরা প্রথম: টিকা দেয়ার ‘উল্টো’ নীতি ইন্দোনেশিয়ার

image

ফিলিস্তিনিদের ওপর জাতিগত বৈষম্য: ইসরায়েলি মানবাধিকার সংস্থার প্রতিবেদন

image

ট্রাম্পের অভিশংসনে ভোট দেবেন বেশ কয়েকজন রিপাবলিকান

image

মার্কিন রাজনীতিতে অস্থিরতা : সতর্কাবস্থায় বিভিন্ন নিরাপত্তা বাহিনী

image

স্পেনে তাপমাত্রা -২৫ সেলসিয়াস, ৭ জনের মৃত্য

image

আত্মঘাতী হওয়ার চিন্তা করেছেন অর্ধেক আইসিইউ কর্মী: গবেষণা

image

ট্রাম্পকে অভিশংসনের প্রস্তাব নাকচ করলেন পেন্স

image

মার্কিন বাহিনী কমান্ডার ইন চিফ হিসেবে বাইডেনের নাম ঘোষণা করল

image

ডেমোক্র্যাটদের অভিশংসন প্রচেষ্টা হাস্যকর: ট্রাম্প

image

ইরান আল কায়েদার নতুন ঘাঁটি : পম্পেও

image

বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা ১৯ লাখ ৭০ হাজার ছাড়াল

image

ভারতে টিকা পরিবহনের কাজ শুরু

image

নতুন কৃষি আইন স্থগিত করে দিয়েছে ভারতের সুপ্রীম কোর্ট

image

করোনা ভ্যাকসিন রফতানির সিদ্ধান্ত কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই: জয়শঙ্কর

image

ভারত সরকারের কাছে প্রতি ডোজ টিকা ২০০ রুপিতে বিক্রি করেছে সেরাম

image

চীন মার্কিন দূতের তাইওয়ান সফর নিয়ে ক্ষুব্ধ

image

করোনা প্রতিরোধে মালয়েশিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি

image

চিলিতে ছয় মাত্রার ভূমিকম্প

image

ইটালিতে বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রেরণকারীদের সম্মাননা প্রদান

image

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদিকে ‘ইডিয়ট’ বলে চাকরি খোয়ালেন পাইলট

image

যুক্তরাষ্ট্রে মানব পাচারের দায়ে বাংলাদেশী নাগরিক দণ্ডিত

image

সাইবার হামলার শিকার হলো নিউ জিল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ব্যাংকে

image

ইন্দোনেশিয়াল পশ্চিমাঞ্চলে ভূমিধস: নিহত ১১

image

মাইক পেন্স থাকছেন জো বাইডেনের শপথে

image

৫৭ শতাংশ আমেরিকান ট্রাম্পের পদত্যাগ চান

image

ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের মুখোমুখি পাকিস্তান

পাকিস্তান ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিপর্যয়ে অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে। সে দেশের সংবাদমাধ্যম ডন জানিয়েছে,

ইন্দোনেশিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত, ৬২ আরোহীর মৃত্যুর শঙ্কা

image

ভারতে ১৬ জানুয়ারি থেকে করোনা টিকা দেয়া শুরু

image

ইন্দোনেশিয়ায় ৬২ আরোহী নিয়ে উড়োজাহাজ নিখোঁজ

ইন্দোনেশিয়ার শ্রীবিজয়া এয়ারের একটি যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ শনিবার (৯ জানুয়ারি) রাজধানী জাকার্তা থেকে উড্ডয়নের কিছুক্ষণ পর কন্ট্রোল টাওয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

গুগল প্লে স্টোর থেকে বাদ ডানপন্থীদের পার্লার অ্যাপ

image

৫৯ আরোহী নিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় উড়োজাহাজ নিখোঁজ

image

যৌন নির্যাতনে ক্ষতিপূরণ দিতে জাপানকে নির্দেশ দক্ষিণ কোরিয়ার আদালতের

image

ক্যাপিটল হিলে হামলার সময় বাইডেনের স্বীকৃতি পেছাতে সিনেটরদের ট্রাম্পের ফোন

image

যুক্তরাষ্ট্রই সবচেয়ে বড় শত্রু মনে করেন কিম

image

ট্রাম্পকে অভিশংসনের পরিকল্পনা

image

করোনা্ প্রতিরোধে টিকা নিলেন সৌদি বাদশা

image

করোনার ভয়ে পুরো বিমান বুক

image