আলবেনিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্প : নিহত ১১

image

ইউরোপের দাক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় দেশ আলবেনিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। ২৬ নভেম্বর মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ভোরে রাজধানী তিরানাসহ সংলগ্ন এলাকায় এ কম্পন অনুভূত হয়। এতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কমপক্ষে ১১জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এছাড়াও আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে ৩৫০ জন। এ ভূমিকম্পের তাণ্ডবে বহু ঘরবাড়ি ধসে পড়েছে। ধসে পড়া স্থাপনার ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে আছেন অনেকেই। ফলে নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সিএনএন, রয়টার্স।

এক প্রতিবেদনে রয়টার্স জানিয়েছে, গত কয়েক দশকের মধ্যে এটিই আলবেনিয়ায় আঘাত হানা সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) জানিয়েছে, রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৪। স্থানীয় সময় ভোর ৪টার কিছু আগে কম্পনটি আঘাত হানে। এ নিয়ে দুই মাসের মধ্যে দ্বিতীয় দফায় দেশটিতে ভূমিকম্প আঘাত হানল। ইউএসজিএস জানিয়েছে, এ দফায় কম্পনের কেন্দ্রস্থল ছিল রাজধানী তিরানা থেকে ৩০ কিলোমিটার পশ্চিমে ভূপৃষ্ঠের ১০ কিলোমিটার গভীরে। দেশটির প্রতিরক্ষা দফতরের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, থুমানে নামের উত্তরাঞ্চলীয় একটি গ্রামে ভবনের ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দুই নারীর মরদেহ পাওয়া গেছে। কারবিন শহরের একটি ভবনে কম্পনের তাণ্ডবে আতঙ্কিত লোকজনের হুড়োহুড়ির ঘটনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। দুরেস এলাকায় একটি ধসে পড়া ভবনে একজনের মরদেহের সন্ধান মিলেছে। উদ্ধারকর্মীরা জানিয়েছেন, মৃতদের মধ্যে একজন বয়স্ক নারীও রয়েছেন।

জড়িয়ে ধরে নিজের নাতিকে বাঁচাতে গিয়ে তার মৃত্যু হয়। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন, ক্ষতিগ্রস্ত দুরেস এলাকায় ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকে পড়া লোকজনকে উদ্ধারে দমকল বাহিনীর পাশাপাশি সেনা সদস্যরাও স্থানীয়দের সহায়তা করছে। বলকান অঞ্চলের মুসলিম দেশ আলবেনিয়াকে ইউরোপের সবচেয়ে দরিদ্র দেশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ইউরোস্টার্ট-এর ডাটা অনুযায়ী, দেশটির জনগণের গড় আয় ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর নাগকিদের গড় আয়ের এক-তৃতীয়াংশেরও কম।