ইরানি ট্যাংকার আটকের পরোয়ানা জারি মার্কিন বিচার বিভাগের

image

ইরানের তেলবাহী সুপার ট্যাংকার গ্রেস-ওয়ান

জিব্রাল্টার কর্তৃপক্ষ ইরানের তেলবাহী সুপার ট্যাংকার গ্রেস-ওয়ানকে মুক্তি দেয়ার একদিন পর তা জব্দের পরোয়ানা জারি করেছে মার্কিন বিচার বিভাগ। আন্তর্জাতিক জরুরি অর্থনৈতিক শক্তি আইন (আইইইপিএ) ও সন্ত্রাসবাদ বাজেয়াপ্ত বিধি লঙ্ঘন, ব্যাংক জালিয়াতি এবং অর্থ পাচারের ওপর ভিত্তি করে জাহাজটি ও এটিতে থাকা সব তেল এবং ৯ লাখ ৯৫ হাজার মার্কিন ডলার বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেয়া হয়। ১৬ আগস্ট শুক্রবার এ পরোয়ানা জারি করা হয়।

যুক্তরাজ্য নিয়ন্ত্রিত ভূমধ্যসাগরের জিব্রাল্টার প্রণালি থেকে ইরানি তেলবাহী সুপার ট্যাংকার গ্রেস-ওয়ানকে গত ৪ জুলাই জব্দ করে ব্রিটিশ মেরিন সেনারা। ২১ লাখ ব্যারেল তেল বহনকারী ইরানি সুপারট্যাংকার গ্রেস ওয়ান ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) আরোপিত নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে সিরিয়ায় তেল নিয়ে যাচ্ছে বলে এমন সন্দেহে আটক করা হয়। ট্যাংকারটি জব্দ করার পর থেকে ইরান ও ব্রিটেনের মধ্যে কূটনৈতিক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে সিরিয়ায় যাচ্ছে না নিশ্চিত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধিতা সত্ত্বেও জিব্রাল্টারের সুপ্রিমকোর্টের শুনানি শেষে ১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার তেল ট্যাংকারটি মুক্তি দেয় কর্তৃপক্ষ। মুক্তি দেয়ার পর ইরানি তেল ট্যাংকার অবস্থান পরিবর্তন করলেও জিব্রাল্টারের নোঙ্গর থেকে বের হয়নি। তবে এটা পরিষ্কার নয় যে, নোঙ্গর ছেড়ে যাওয়ার জন্য জাহাজটি শীঘ্রই প্রস্তুতি নিতে পারবে। এ বিষয়ে জিব্রাল্টার কর্তৃপক্ষের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। ট্যাংকারটি আটকে রাখতে বৃহস্পতিবার শেষ মুহূর্তে আইনি উদ্যোগ নিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র, কিন্তু তাদের আবেদন খারিজ করে দেয় জিব্রাল্টার। এর আগে গ্রেস ওয়ানের আটককে রাখা ‘অবৈধ’ বলে দাবি করে ইরান। ট্যাংকারটি আটকের দুই সপ্তাহ পর ১৯ জুলাই হরমুজ প্রণালি থেকে ব্রিটিশ ট্যাংকার স্টেনা ইমপেরোকে জব্দ করে দেশটি। জাহাজটি ‘আন্তর্জাতিক সমুদ্র আইন’ লঙ্ঘন করেছে, ইরান এমন দাবি করলেও গ্রেস ওয়ানের পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে তারা এমন করেছে বলে ধারণা করা হয়। ওয়াশিংটন দাবি করেছে, ইন্টারন্যাশনাল ইমার্জেন্সি ইকোনোমিক পাওয়ার অ্যাক্ট লঙ্ঘন, ব্যাংক প্রতারণা, অর্থ পাচার, সন্ত্রাসবাদী আইনের বলে তারা গ্রেস ওয়ানে থাকা সব তেলসহ ট্যাংকারটিকে জব্দ করতে পারবে। প্যারাডাইস গ্লেবাল ট্রেডিং এলএলসি সঙ্গে সম্পর্কিত অজ্ঞাতনামা এক মার্কিন ব্যাংকের একটি অ্যাকাউন্ট থেকে নয় লাখ ৯৫ হাজার ডলার জব্দেরও নির্দেশ দিয়েছে তারা। প্যারাডাইস গ্লোবাল ইরানের রেভুলেশনারি গার্ডের সঙ্গে ব্যবসায় জড়িত বলে অভিযোগ করেছে ওয়াশিংটন। যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি ইরানের ইসলামিক রেভুলেশনারি গার্ড কোরকে বিদেশি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করেছে। যুক্তরাজ্যের কর্তৃত্বাধীন জিব্রাল্টার সরকার জানিয়েছে, গ্রেস ওয়ানে বহন করা তেল সিরিয়ায় খালাস করা হবে না, লিখিতভাবে ইরানের কাছ থেকে এমন আশ্বাস পেয়েছে তারা। জিব্রাল্টারের বিচারপতি গ্রেস ওয়ানকে ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেয়ার পর অঞ্চলটির মুখ্যমন্ত্রী ফাবিয়ান পিকার্দো বিবিসিকে বলেন, ট্যাংকারটি শীঘ্রই ‘হয় আজ, নয়তো কাল’ জিব্রাল্টার ত্যাগ করতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের পরোয়ানার বিষয়ে ব্রিটেন বা জিব্রাল্টারের পক্ষ থেকে কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের এ আটকাদেশ নিয়ে জিব্রাল্টার বা যুক্তরাজ্য কেউই কোন প্রতিক্রিয়া দেখায়নি।