এক বছরে দক্ষিণ এশিয়ায় প্রাণ হারিয়েছেন ২২ সংবাদকর্মী

image

দক্ষিণ এশিয়ায় সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা সংক্রান্ত প্রতিবেদনের ১৭তম সংস্করণ প্রকাশ করেছে সাংবাদিকদের আন্তর্জাতিক সংগঠন আইএফজে (ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব জার্নালিস্টস), দক্ষিণ এশিয়ার গণমাধ্যম সংহতি নেটওয়ার্ক এসএএমএসএন (সাউথ এশিয়া মিডিয়া সলিডারিটি নেটওয়ার্ক) ও তাদের সহযোগী সংগঠনগুলো। আইএফজে’র সাংবাদিক নিরাপত্তা সূচক (জেএসআই) অনুযায়ী, গতবছর দক্ষিণ এশিয়ায় প্রাণ হারিয়েছেন ২২ জন সংবাদকর্মী এবং আটক হয়েছেন ২৪ জন সাংবাদিক। ৩ মে (শুক্রবার) বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে ‘ট্রুথ ভার্সাস মিস ইনফরমেশন : দ্য কালেক্টিভ পুশব্যাক’ (সত্য বনাম ভুলতথ্য : এর যৌথ নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি প্রকাশ হয়।

আইএফজে’র এ প্রতিবেদনে নানা চাপ সত্ত্বেও অগণিত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দক্ষিণ এশিয়ার সাংবাদিকদের ভূমিকার প্রশংসা করা হয়েছে। আইএফজে’র সাংবাদিক নিরাপত্তা সূচক (জেএসআই) অনুযায়ী, গত বছর দক্ষিণ এশিয়ায় প্রাণ হারিয়েছেন ২২ জন সংবাদকর্মী। এতে তুলে ধরা হয়েছে, দক্ষিণ এশিয়ায় সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার চলমান চ্যালেঞ্জগুলোকে। এতে উল্লেখ করা হয়, আগ্রাসী নীতি, ভুয়া খবর ও বিদ্বেষী বক্তব্যের ক্ষতিকর প্রভাব এবং নিয়ন্ত্রণের রাজনীতি সত্ত্বেও দক্ষিণ এশিয়ার সংবাদকর্মীরা খুব পরিষ্কারভাবে বুঝিয়ে দিয়েছে, ভুল তথ্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এবং গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের পক্ষে তাদের উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে। আইএফজে’র ভাষ্য : ‘অঞ্চলটিতে সাংবাদিকতা নিয়ে ১৭তম এ বার্ষিক পর্যালোচনার শিরোনাম ‘ট্রুথ ভার্সাস মিস ইনফরমেশন : দ্য কালেক্টিভ পুশব্যাক’। গত বছর এ অঞ্চলের সাহসী ও সংকল্পবদ্ধ সংবাদকর্মীদের চ্যালেঞ্জ, সাফল্য, বিশেষ করে তাদের মধ্যকার সংহতি নিয়ে প্রতিবেদনে আলোচনা করা হয়েছে। ভুয়া খবরের উত্থানের বাজে প্রভাব ও গণমাধ্যমের চিরাচরিত অর্থনৈতিক মডেলের পতন সত্ত্বেও সাংবাদিক, গণমাধ্যমকর্মী ও তাদের সংঘগুলো বার বারই দেখিয়ে দিয়েছে, অগণিত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তারা লড়াকু, সাহসী ও বদ্ধপরিকর।’

আইএফজে’র সাংবাদিক নিরাপত্তা সূচক অনুযায়ী, গত বছর দক্ষিণ এশিয়ায় ২২ সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মী নিহত হয়েছে। এর মধ্যে ১২ জন প্রাণ হারিয়েছে আফগানিস্তানে। একই বছর সাংবাদিকদের ওপর ১৩০টি হামলার ঘটনাও রেকর্ড করা হয়েছে। তবে এগুলোতে কোন প্রাণহানি হয়নি। দ্বিতীয় বছরের মতো আইএফজে সাংবাদিক আটকের ঘটনা নথিভুক্ত করেছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, গত বছর দক্ষিণ এশিয়ায় ২৪ সাংবাদিক আটক হন। এর মধ্যে চার সাংবাদিক এখনও আটক রয়েছেন। দক্ষিণ এশিয়ায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেয়ার ঘটনাও নথিভুক্ত করা হয়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত বছর ১০৬ বার ইন্টারনেট বন্ধ করা হয়েছে, এর মধ্যে ৯৬টি ঘটনাই ঘটেছে ভারতে।

আইএফজে’র ১৭তম সংস্করণ প্রতিবেদনের প্রচ্ছদে বিশ্বনন্দিত বাংলাদেশি আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের ছবি রেখে প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে।