করোনা নিয়ন্ত্রনে সব দেশকে জেগে উঠতে হবে : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

image

বিশ^জুড়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। সাত মাসের ব্যবধানে সোয়া ৫ লাখের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নেয়া কোভিড-১৯ এ বিশ্বজুড়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এক কোটি ১০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে।

এ প্রেক্ষাপটে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) গুরুতর করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের শিকার দেশগুলোকে দ্বন্দ্বের পরিবর্তে বাস্তবতার নিরিখে এর ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানিয়েছে। এসব দেশকে জেগে ওঠার কথা বলেছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা।

জেনেভায় জাতিসংঘের সংবাদদাতাদের সমিতি আয়োজিত এক ব্রিফিংয়ে ডব্লিউএইচওর জরুরি অবস্থার পরিচালক মাইকেল রায়ান সাংবাদিকদের বলেন, মানুষকে জেগে উঠতে হবে। তথ্য মিথ্যা নয়। বর্তমান মাঠপর্যায়ের পরিস্থিতি মিথ্যা নয়।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র ও লাতিন আমেরিকায় করোনার সংক্রমণ বিস্তারে বিশ্বব্যাপী মৃত্যু পাঁচ লাখ ছাড়িয়ে যাওয়ার পর ডব্লিউএইচওর পক্ষ থেকে সতর্ক করে বলা হয়, এ মহামারি শেষ হওয়ার ধারে কাছেও নেই।

সংস্থার মহাপরিচালক তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস বলেন, ‘আমরা সবাই এর সমাপ্তি চাই। আমরা সবাই আমাদের জীবন নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাত্ত অনুযায়ী, ২৮ জুন বাংলাদেশ সময় বিকালে সাড়ে ৪টায় বিশ্বে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ১ কোটি ১ হাজার ৫২৭ জন। আলজাজিরার এক খবরে জানানো হয়, শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় ওই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ১০ লাখ ৭৪ হাজার ৮৭৮ জনে।

ব্রাজিলসহ দক্ষিণ আমেরিকার বিভিন্ন দেশে সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত থাকার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের দুই-তৃতীয়াংশ অঙ্গরাজ্যেও শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ক্রমাগত বাড়তে থাকায় বিশ্বজুড়ে এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে ১০ লাখ নতুন রোগী মিলল।

প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ার পর চার মাসের মাথায় ১ এপ্রিল বিশ্বে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়ে যায়। এর পরের সাত সপ্তাহে আরও ৪০ লাখ মানুষের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ায় ২১ মে আক্রান্তের সংখ্যা অর্ধ কোটি ছাড়িয়ে যায়। পরের ৫০ লাখ রোগী শন্ক্তা হয় আরও কম সময়ে, মাত্র পাঁচ সপ্তাহে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাত দিয়ে রয়টার্স লিখেছে, প্রতিবছর বিশ্বে যত লোক মারাত্মক ইনফ্লুয়েঞ্জায় আক্রান্ত হয়, সাত মাসে মোটামুটি তার দ্বিগুণ মানুষকে সংক্রমিত করেছে নতুন এ করোনাভাইরাস।

আর কোভিড-১৯ এ পর্যন্ত যত মানুষের মৃত্যু হয়েছে, তা এক বছরে ইনফ্লুয়েঞ্জায় মৃত্যুর প্রায় সমান।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকাল পর্যন্ত নতুন করোনাভাইরাস বিশ্বজুড়ে ৫ লাখ ২৫ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে।

শনাক্ত রোগী ১৫ লাখ ছাড়ানো ব্রাজিলে কোভিড-১৯ এ মৃত্যু ৬২ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। শনাক্ত রোগী ও মৃত্যুতে সবার উপরে থাকা যুক্তরাষ্ট্রেও এখন প্রায় প্রতিদিনই ৫০ হাজারের বেশি মানুষের দেহে ভাইরাসটির উপস্থিতি মিলছে।

লকডাউন শিথিলের পর থেকে ভারতেও নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। দেশটিতে শুক্রবার থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ২২ হাজারেরও বেশি মানুষের দেহে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে।