করোনা: রাশিয়াকে টপকে ৩ নম্বরে ভারত

image

প্রতীকী ছবি

করোনা পরিস্থিতির দিন দিনই অবনতি হচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম দেশ ভারতে। করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ তালিকায় রাশিয়াকে পেছেনে ফেলে ভারত এখন তিন নম্বরে অবস্থান করছে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের পরিসংখ্যান প্রদানকারী নির্ভরযোগ্য সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের ওয়েবসাইট থেকে সোমবার (৬ জুলাই) বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৬ টায় সংগৃহীত তথ্যানুযায়ি, করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যু দুটোরই শীর্ষে আছে যুক্তরাষ্ট্র; এরপর ব্রাজিলের অবস্থান। সংক্রমণে তিন নম্বরে উঠে এসেছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত। এরপর রাশিয়া ও পেরুর অবস্থান। মৃত্যু তালিকায় তিন থেকে পাঁচ নম্বরে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, ইতালি ও মেক্সিকোর অবস্থান।

ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৯৭ হাজার ৮৩৬, মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৭০০ জনের। সুস্থ্য হয়েছেন ৪ লাখ ২৪ হাজার ৮৯১ জন। আয়তনে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশ রাশিয়ায়ি আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৮১ হাজার ২৫১, মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ১৬১ জনের। সুস্থ্য হয়েছেন ৪ লাখ ৫০ হাজার ৭৫০ জন।

ভারতে গত দু’দিন ধরেই ২২-২৪ হাজার ছুঁয়ে ফেলছিল একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা। যার জেরে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা। রোজই রেকর্ড গড়ছে দেশটি। গত শনিবারের হিসেব বলছে, এক দিনে ২২,৭৭১ জনের দেহে নতুন করে সংক্রমণ ধরা পড়ায় পুরোনো সব রেকর্ড ভেঙে গিয়েছিল। সংক্রমণের ওই রেকর্ড ভেঙ্গে রোববার আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ২৪ হাজার ৮৫০ জনে। দেশটিতে পরপর তিন দিন বিশ হাজারের বেশী আক্রান্ত হয়।

করোনা রুখতে ভরতে কঠোর লকডাউন জারি হয় ২৩ মার্চ। বেশ কয়েক দফা লকডাউন চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার পর আর্থিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে করে কিছু ক্ষেত্রে শর্তসাপেক্ষ ভাবে নিয়মকানুন শিথিল করা হয়। যদিও এখনও স্কুল কলেজ সিনেমাহল বন্ধই রাখা হয়েছে। বন্ধ যাত্রীবাহী ট্রেনও।

উল্লেখ্য, সংক্রমণ ও মৃত্যু দুই তালিকায় শীষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২৯ লাখ ৮২ হাজার ৯২৮ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৩২ হাজার ৫৬৯ জনের। দেশটিতে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১২ লাখ ৮৯ হাজার ৫৬৪ জন মানুষ।

সংক্রমণ ও মৃত্যু দুই তালিকায়ই দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লাখ ৪ হাজার ৫৮৫, মৃত্যু হয়েছে ৬৪ হাজার ৯০০ জনের। সুস্থ্য হয়েছেন ৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬১৫ জন।