চীনে নিহত ৮১১, আক্রান্ত ৩৭১৯৮

image

চীনে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮১১-তে। এছাড়া এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩৭ হাজার ১৯৮ জন মানুষ। ৯ ফেব্রুয়ারি রোববার এ তথ্য জানায় দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন। আল-জাজিরা।

সংবাদ মাধ্যমটি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) মধ্যরাত পর্যন্ত চীনে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে শুক্রবার থেকে শনিবার মধ্যরাতের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ৮৯ জনের। এরমধ্যে ৮১ জন হুবেই প্রদেশের বাসিন্দা।

চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শহরটির বাসিন্দাদের মৃত্যুর খবর বেশি শোনা যাচ্ছিল এতদিন। সেখানে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের দুই নাগরিকের মৃত্যুর খবর জানায় কর্তৃপক্ষ। এর বাইরে হংকং এবং ফিলিপাইনেও দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। ২০১৯ সালের শেষদিকে এসে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে এই ভাইরাস। চীনের বাইরেও ২৫টির বেশি দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে তিন শতাধিক মানুষ।

করোনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্ত জাপান : ইতোমধ্যে প্রাণঘাতী এ ভাইরাস চীনের বাইরে বিশ্বের ২৫টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি ৯০ জন আক্রান্ত হয়েছে জাপানে। এর মধ্যে ৬৪ জন ইয়োকোহামা বন্দরে যাত্রীবাহী জাহাজে কোয়ারাইন্টানে রয়েছেন। এর ফলে আতঙ্ক বাড়ছে দেশটির জনগণের মধ্যে।

জাপানের পরেই সংখ্যার বিচারে দ্বিতীয় আক্রান্ত দেশ সিঙ্গাপুর, দেশটিরত ৪০ ব্যক্তি এ ভাইরাসে আক্রান্ত। এদিকে, থাইল্যান্ড কর্তৃপক্ষ জনিয়েছে তাদের দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৩২। আর হংকংয়ে আক্রান্ত রয়েছেন ২৬ জন। এছাড়া দেশটিতে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এর বাইরে দক্ষিণ কোরিয়ায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ জন, তাইওয়ানে ১৭ জন মালয়েশিয়ায় ১৬ জন, অস্ট্রেলিয়ায় ১৫ জন, জার্মানি-ভিয়েতনামে ১৩ জন করে ২৬ জন। এসব দেশের বাইরে বেলজিয়াম, কম্বোডিয়া, কানাডা, ফ্রান্স, ফিনল্যান্ড, ভারত, ইটালি, ম্যাকাও, নেপাল, ফিলিপাইন, রাশিয়া, স্পেন, শ্রীলঙ্কা, সুইডেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বেশ কয়েকজন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

করোনা ছাড়িয়ে গেল সার্স ভাইরাসকেও : করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা ২০০২-০৩ সালে সার্সের প্রাদুর্ভাবকেও ছাড়িয়ে গেছে। ২০০২-০৩ সালে করোনাভাইরাস পরিবারের আরেক সদস্য সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোমে (সার্স) মৃত্যু হয়েছিল সব মিলিয়ে ৭৭৪ জনের। আর এবার করোনায় এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮১৩ জনে। ১৮ বছর আগে সার্স সে সময় ছড়িয়ে পড়েছিল তখন বিশ্বের দুই ডজন দেশে; আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৮ হাজার ১০০ জনের কাছাকাছি। আক্রান্তের সংখ্যার দিক দিয়ে এবারের করোনাভাইরাস ফেব্রুয়ারির শুরুতেই ছাড়িয়ে গিয়েছিল সার্সকে।