নোবেল পুরস্কারের অর্থমূল্য বাড়ল ফাউন্ডেশন

image

গত বছরের তুলনায় চলতি বছর নোবেল পুরস্কারজয়ীদের ১০ লাখ ক্রৌন বা প্রায় এক লাখ ১০ হাজার ডলার বেশি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন নোবেল ফাউন্ডেশনের প্রধান লারস হেইকেনস্টেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের সূত্র মতে বৃহস্পতিবার সুইডেনের দৈনিক ডাগেন ইন্ডুস্ট্রিকে তিনি এ তথ্য দিয়েছেন । লারস হেইকেনস্টেন বলেছেন, এ বছর থেকে নোবেল পুরস্কারের অর্থমূল্য ফের এক কোটি ক্রৌন হচ্ছে।

ডিনামাইট আবিষ্কারক আলফ্রেড নোবেল ৩ কোটি ১০ লাখ ক্রৌন রেখে গিয়েছিলেন, আজকের বাজারে যা প্রায় ১৮০ কোটি ক্রোনের সমান। তার রেখে যাওয়া ওই অর্থ দিয়েই ১৯০১ সাল থেকে মর্যাদাপূর্ণ এ নোবেল পুরস্কারের প্রচলন করা হয়।

রয়টার্স জানিয়েছে, শত বছরেরও বেশি সময় ধরে নোবেল পুরস্কার বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হয়ে এলেও সময়ে সময়ে এ পুরস্কারের অর্থমূল্য পরিবর্তিত হয়েছে। শুরুর দিকে বিজয়ীদের দেড় লাখ ক্রৌন দেওয়া হতো, পরে বাড়তে বাড়তে ১৯৮১ সালে তা ১০ লাখ ক্রৌনে দাঁড়ায়। পরের দুই দশক এ অর্থমূল্য হু হু করে বাড়ে। ২০০০ সালে প্রতিটি পুরস্কারের অর্থমূল্য দাঁড়ায় ৯০ লাখ ক্রৌনে; পরের বছর বেড়ে হয় এক কোটি ক্রৌন। ২০০৮-০৯ সালের মন্দায় নোবেল ফাউন্ডেশনের বিনিয়োগ ক্ষতিগ্রস্ত হলে পরিস্থিতি সামলাতে সুইডেনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক প্রধান হেইকেনস্টেনকে ফাউন্ডেশনের দায়িত্বে নিয়ে আসা হয়। তার হাত ধরেই নোবেল পুরস্কারের অর্থমূল্য কমে যায়। ২০১২ সালে পুরস্কারটির অর্থমূল্য হয় ৮০ লাখ ক্রৌন; ২০১৭ সালে বাড়িয়ে করা হয় ৯০ লাখ ক্রৌন।

এ বছর থেকে ফের এক কোটি কৌন হলেও, সময়ে সময়ে পুরস্কারের অর্থমূল্য আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন হেইকেনস্টেইন। চলতি বছরের শেষদিকে তিনি ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরে যাচ্ছেন; তার স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন নরওয়ের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিদান হেলগেসেন।