মঙ্গলে প্রাণের খোঁজে নাসার রোবট

image

মঙ্গল গ্রহে জীবনের খোঁজে যাত্রা শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার রোবট পারসেভারেন্স।

শুক্রবার ফ্লোরিডা থেকে ছয় পায়ের এক টন ওজনের এই রোবট বহনকারী এটলাস রকেটের উৎক্ষেপণ হয়।

আগামী ফেব্রুয়ারিতে মঙ্গলে অবতরণের কথা রয়েছে রকেটটির, জানিয়েছে বিবিসি।

গত ১১ দিনে এ নিয়ে তিনটি মহাকাশ যান গেল মঙ্গল অভিযানে। আগের দুটি পাঠিয়েছে চীন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

করোনা মহামারি আসার পর নাসার একমাত্র অগ্রাধিকার ছিল এই অভিযান। অভিযানের সময়সূচি যাতে পাল্টাতে নাহয় সেজন্য তারা বিশেষ কর্মপদ্ধতিতে কাজ চালিয়ে গেছে।

নাসার কর্মকর্তা জিম ব্রাইডেনস্টাইন বলেন, ‘আমি মিথ্যে বলবো না, এটা ছিল খুবই কঠিন। কিন্তু দেখুন, পুরো টিমের কল্যাণে শেষ পর্যন্ত এটা করা গেলো। আমি আপনাদের বলবো, আমাদের সমন্বিত টিম যেভাবে কাজটা সম্পন্ন করেছে, তা নিয়ে আমরা সবচেয়ে বেশি গর্বিত। এটা খুবই, খুবই আনন্দের।’

নাসা জানিয়েছে, পারসেভারেন্স মঙ্গলের বিষুবীয় এলাকায় জাজেরো নামে একটি গর্তে অবতরণ করবে।

উপগ্রহ চিত্র থেকে ধারণা করা হয়, এখানে কয়েকশ কোটি বছর আগে একটা হ্রদ ছিল।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, যদি কোনো কালে এই গ্রহে প্রাণের অস্তিত্ব থেকে থাকে, তাহলে এই গর্তের শিলার ধরণ দেখে মনে হচ্ছে এখানেই প্রাণের অবশিষ্ট চিহ্ন থাকার সম্ভাবনা আছে।

রোবটটি মঙ্গলের এক বার্ষিক আবর্তন পর্যবেক্ষণ করবে। মঙ্গলের এক বছর পৃথিবীর প্রায় দুই বছরের সমান।

মঙ্গলে প্রাণ বা প্রাণের অবশেষ থাকলে তা শনাক্ত করতে পারবে পারসেভারেন্স।