মুক্তি পেলেন জম্মুর নেতারা

image

জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার প্রায় দুই মাস পর জম্মুর গৃহবন্দী সব রাজনীতিককে মুক্তি দিয়েছে ভারতীয় প্রশাসন। কিন্তু কাশ্মীর উপত্যকার রাজনীতিকদের এখনও বন্দী বজায় রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। জম্মুর পঞ্চায়েতরাজ ব্যবস্থার দ্বিতীয় পর্যায় ব্লক উন্নয়ন কাউন্সিলের নির্বাচনকে সামনে রেখে তাদের মুক্তি দেয়া হয়েছে। জম্মুর মুক্তি পাওয়া নেতাদের মধ্যে দেভেন্দ্রর সিং রানা, রমন ভল্লা, হর্শদেব সিং, চৌধুরী লাল সিং, ভিকর রাসুল, জাভেদ রানা, সুরজিত সিং স্লাথিয়া ও সাজ্জাদ আহমেদ কিচলু উল্লেখযোগ্য।

ন্যাশনাল কনফারেন্সের দেবেন্দ্র রানা এনডিটিভিকে বলেছেন, ‘আমার চলাচলে কোন বিধিনিষেধ থাকবে না বলে গত সন্ধ্যায় এক পুলিশ কর্মকর্তা আমাকে জানিয়েছেন।’ কর্মকর্তারা জানান, জম্মুর যেসব নেতা গৃহবন্দী ছিলেন তাদের মুক্তি দেয়া হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে আরোপ করা বিধিনিষেধ তুলে নেয়া হয়েছে। কয়েকদিন আগে পঞ্চায়েতরাজ ব্যবস্থার দ্বিতীয় পর্যায় ব্লক উন্নয়ন কাউন্সিলের নির্বাচন ঘোষণা করেছেন জম্মু ও কাশ্মীরের প্রধান নির্বাচনী কর্মকর্তা। এ কারণেই স্থানীয় রাজনীতিকদের মুক্তি দেয়ার এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সরকারি সূত্রগুলো এনডিটিভিকে জানিয়েছে, জম্মুতে আগের থেকে শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বিরাজ করায় ওই নির্বাচনের আগে রাজনীতিকদের মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার। চলতি বছরের ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। এ পদক্ষেপকে ঘিরে কাশ্মীরজুড়ে মোতায়েন করা হয় বিপুলসংখ্যক অতিরিক্ত সেনা। আটক করা হয় শত শত নেতাকর্মী। এসব নেতাদের মধ্যে রয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি, ওমর আবদুল্লাহ ও ফারুক আবদুল্লাসহ প্রায় ৪০০ রাজনীতিককে আটক অথবা গৃহবন্দী করা হয়। অভিযোগ উঠেছে, সেখানে সংবাদ মাধ্যমের ওপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে বেসামরিক মানুষের ওপর অকথ্য নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় বাহিনী। নির্যাতনের শিকার হয়ে কয়েকজনের মৃত্যুর খবরও আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে ভারত। কাশ্মীরে ভারতের পদক্ষেপের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারকে বহিষ্কারের পাশাপাশি দুই দেশের বাণিজ্য সম্পর্কও স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ২৪ অক্টোবর জম্মুর ৩০০টি ব্লক উন্নয়ন কাউন্সিলের নির্বাচন হবে। এতে ২৬ হাজার পঞ্চায়েত সদস্য ভোট দেবেন।