মোগাদিসুতে গাড়িবোমা হামলা : নিহত ৬১

image

সোমালিয়ায় গাড়িবোমা হামলায় আহত এক ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে -এএফপি

আফ্রিকার দেশ সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুর নিরাপত্তা বাহিনীর একটি তল্লাশি কেন্দ্রে ভয়াবহ গাড়িবোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৬১ জনেরও বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। এছাড়াও এতে শিশুসহ ৫১ জন আহত হয়েছেন। ২৮ ডিসেম্বর শনিবার স্থানীয় সময় সকালে এ হামলা চালানো হয়। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনও গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে জঙ্গি গোষ্ঠী আল-শাবাব প্রায়ই সোমালিয়ায় এ ধরনের হামলা চালিয়ে থাকে। আল-জাজিরা।

ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে তল্লাশি কেন্দ্রে গাড়িবোমা হামলায় নিহতদের মধ্যে বিদেশি নাগরিকও আছে বলে জানিয়েছে।কর্তৃপক্ষের বরাতে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিস্ফোরণে মরদেহগুলো ছিন্নভিন্ন হয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এটি ছিল বড় ধরনের গাড়িবোমা হামলা। ঘটনাস্থলের চারপাশে মরদেহ ও রক্ত ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুসেন বলেন, ‘বিস্ফোরণটি ছিল ভয়াবহ। ৩০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করতে পারি। আরও অনেকে আহত রয়েছেন। হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে। প্রত্যক্ষদর্শী আহমেদ মোয়ালিম ওয়ারসেম বলেন, ‘আমি ২২টি মরদেহ গুনেছি। তাদের সবাই বেসামরিক নাগরিক। ৩০ জনেরও বেশি আহত হয়েছেন। এটা একটা কালোদিন’। বিস্ফোরণের পর ঘটনাস্থলে মোগাদিসুর মেয়র ওমর মোহাম্মদ সাংবাদিকদের বলেছেন, বিস্ফোরণে অন্তত ৯০ জন আহত হয়েছে বলে সরকার নিশ্চিত করছে। এদের বেশিরভাগই শিক্ষার্থী। ১৯৯১ সালে সেনা শাসনের অবসান হওয়ার পর থেকে সোমালিয়াতে সহিংসতা ও অস্থিতিশীলতা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। প্রেসিডেন্ট মোহামেদ সিয়াদ বারে ক্ষমতাচ্যুত হলে দেশের যুদ্ধবাজ গোত্রপতিরা হানহানিতে জড়িয়ে পড়লে সোমালিয়া কার্যত একটি যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত হয়। ২০১২ সালে দেশটিতে জাতিসংঘ সমর্থিত সরকার দায়িত্ব নেয়। এরপর থেকে আল শাবাব জঙ্গি গোষ্ঠীকে বাধাগ্রস্ত করা সম্ভব হলেও সোমালিয়ার গ্রামীণ এলাকায় তারা এখনও তৎপর। শনিবার সকালে মোগাদিসুতে গাড়িবোমা হামলার পর বিশাল কালো ধোঁয়া উড়তে দেখা যায়। এর আগে চলতি মাসের ১১ও ২২ ডিসেম্বরও সোমালিয়ার বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। ১১ ডিসেম্বর মোগাদিসুর এক হোটেলে উগ্রপন্থিদের হামলায় পাঁচজন নিহত হন। এদিকে ২২ ডিসেম্বর দেশটির মুদুক অঞ্চলের গালকাইয়ো শহরে গাড়িবোমা হামলা চালায় জঙ্গি গোষ্ঠী আল-শাবাব। এতে কপমপক্ষে সাতজন নিহত হয়েছেন।