যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যু প্রায় ১ লাখ

নিউইয়র্কে মৃত্যু ২৯ হাজার

image

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ তালিকার শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত প্রায় এক লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ লাখ ৬ হাজার ২২৬ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ৯৯ হাজার ৮০৫ জনের। আক্রান্তের হিসেবে মৃত্যুর হার ১৮ শতাংশ। আয়তনে চতুর্থ এবং জনসংখ্যায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশটি ভাইরাসটি প্রতিরোধে হিমশিম খাচ্ছে।

প্রায় ৯৩ লাখ ৩৭ হাজার বর্গ কিলোমিটার আয়তনের দেশ যুক্তরাষ্ট্র ৩৩ কোটি মানুষের বসবাস। দেশটিতে করোনার শনাক্তের জন্য মোট ১ কোটি ৫১ লাখ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দেশটিতে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৬৭০ জন মানুষ। সূত্র: ওয়ার্ল্ডোমিটার; ২৬ মে, বাংলাদেশ সময় বেলা সোয়া ১২টা।

করোনায় সবচেয়ে বেশী আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের মানুষ। জনবহুল এই স্টেটে মৃত্যুও বেশী হয়েছে। নিউইয়র্কে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৭২ হাজার ৪৯৪ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৩১০ জনের।

আক্রান্ত ও মৃত্যু তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে নিউ জার্সি। এখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৫৬ হাজার ৬০২ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার ১৫৫ জনের।

বিভিন্ন গণমাধ্যম সূত্র বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে এ যাবৎ ২৬৫ জন বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়েছে, এরমধ্যে শুধু নিউইয়র্কেই মারা গেছেন ২৪৫ জন বাংলাদেশী।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে করোনার সংক্রমণকে পার্ল হারবার এবং টুইন টাওয়ারে হামলার চেয়েও মারাত্মক বলে মন্তব্য করেছেন। ট্রাম্প ও তার মিত্ররা করোনা মাহামারীর জন্য সরাসরি চীনকে দায়ী করছে। তবে চীন বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

গত ডিসেম্বরের শেষে চীনের উহানে শুরু হওয়া প্রাণঘাতি করোনার সংক্রমণ বিশ্বের ২১৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। শুরুতে বিপাকে পড়লেও প্রায় সাড়ে চার মাসে প্রাদুর্ভাব অনেকটাই সামলে উঠেছে করোনার উৎসস্থল চীন। সংক্রমণ তালিকায় দেশটির বর্তমান অবস্থান ১৪ নম্বরে। যদিও নতুন করে হারবিন শহরে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, তবে সংক্রমণ ও মৃত্যু নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

নভেল (নতুন) করোনাভাইরাসের উৎস চীনের গবেষণাগার নাকি প্রাকৃতিকভাবেই এর উৎপত্তি; বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আহ্বানে একজোট হওয়া একশ’রও বেশী দেশের জোরালো দাবির মুখে তাতে সম্মত হয়েছে চীন। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, এ ধরণের তদন্ত অবশ্যই ‘বস্তুনিষ্ঠ এবং নিরপেক্ষভাবে’ হতে হবে। তদন্তে বৈজ্ঞানিক এবং পেশাদার মনোভাব থাকা দরকার। তদন্তটি বিশ্ব স্বাস্থ সংস্থার নেতৃত্বে হওয়া প্রয়োজন।

করোনায় এ পর্যন্ত বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ৫৫ লাখ ৯১ হাজার ১০ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৪৭ হাজার ৯৪৩ জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৩ লাখ ৬৭ হাজার ৯৩০ জন মানুষ।

করোনা সংক্রমণের শীর্ষ ১০ দেশের তালিকায় যথাক্রমে রয়েছে- যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, রাশিয়া, স্পেন, যুক্তরাজ্য, ইতালি, ফ্রান্স, জার্মানি, তুরস্ক ও ভারত। মৃত্যুর হিসেবে শীর্ষ পাঁচে রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইতালি, ফ্রান্স ও স্পেন। বাংলাদেশ রয়েছে সংক্রমণ তালিকার ২৪ নম্বরে।