‘আজাদ কাশ্মীরও ভারতের অংশ’

image

কাশ্মীরের যে অংশটি পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে সেটি ভারতের অংশ। একইসঙ্গে একদিন নয়াদিল্লি ওই অংশটির নিয়ন্ত্রণ নিবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রাহ্মনিয়াম জয়শঙ্কর। ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাজধানী নয়াদিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব মন্তব্য করেন তিনি। রয়টার্স। কাশ্মীরের সবচেয়ে জনবহুল এলাকা কাশ্মীর উপত্যকা ভারতের শাসনাধীন, অপরদিকে কাশ্মীরের পশ্চিমাংশ পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রণে। নিজেদের নিয়ন্ত্রিত ওই এলাকাকে পাকিস্তান ‘আজাদ কাশ্মীর’ বললেও নয়া দিল্লি ওই অংশটিকে ‘পাকিস্তান-অধিকৃত কাশ্মীর’ (পোক) বলে বর্ণনা করে। সংবাদ সম্মেলনে জয়শঙ্কর বলেন, “আজাদ কাশ্মীর বিষয়ে আমাদের অবস্থান সব সময় অত্যন্ত পরিষ্কার আছে এবং থাকবে। আজাদ কাশ্মীর ভারতের অংশ এবং আমরা আশা করছি একদিন এর ওপর আমরা আইনগত অধিকার, বাস্তব আইনগত অধিকার লাভ করব।” গত মাসে নয়াদিল্লি তাদের অধীনে থাকা মুসলিম প্রধান কাশ্মীরকে পুরোপুরি ভারতের ভূখ-ভুক্ত করার জন্য অঞ্চলটির বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে, তাদের এ পদক্ষেপে কাশ্মীর ও পাকিস্তানজুড়ে ক্ষোভ ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। এক বিবৃতিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জয়শঙ্করের মন্তব্যের নিন্দা করেছে। তারা বলেছে, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ ধরনের বক্তব্যে ‘উত্তেজনা আরও বেড়ে যেতে পারে’ এবং এতে ওই অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তা ‘গুরুতরভাবে বিপন্ন’ হতে পারে। এতে আরও বলা হয়, “পাকিস্তান শান্তির পক্ষে, কিন্তু যে কোন আগ্রাসনের যথাযথ জবাব দেয়ার জন্য প্রস্তুত। ‘পারমাণবিক শক্তিধর এ প্রতিবেশী দেশ দুটি কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে দুইবার যুদ্ধে জড়িয়েছে। কাশ্মীরের মর্যাদা পরিবর্তনের ভারতীয় সিদ্ধান্তের নিন্দা করে পাকিস্তান বলেছে, ওই অঞ্চলের প্রতিবাদকারী ও ভিন্নমতাবলম্বীদের ওপর ভারতের চালানো দমনপীড়ন বিশ্বের মুসলিমদের আরও চরমপন্থার দিকে ঠেলে দেবে। অপরদিকে জয়শঙ্কর বলেছেন, কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের সিদ্ধান্ত ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।