‘স্বল্পজ্ঞানী গ্রেটাকে ব্যবহার করছে অন্যরা’

image

জলবায়ু আন্দোলন নিয়ে সারা বিশ্বে সাড়া ফেললেও গ্রেটা থানবার্গের বক্তব্যকে খুব একটা সমর্থন করছেন না রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তার মতে, গ্রেটা হচ্ছে খুবই অল্প জানা এক কিশোরী, যাকে প্রাপ্তবয়স্করা নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করছে। সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইল জানিয়েছে, গত মাসে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে পরিবেশবাদী আন্দোলনকারী গ্রেটা থানবার্গ জলবায়ু রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হওয়ার অভিযোগে কঠোর সমালোচনা করেন বিশ্বনেতাদের।

এ সুইডিশ কিশোরীর সাহসী বক্তব্য প্রশংসা কুড়িয়েছে সবার কাছেই। তবে, মেয়েটির এসব কার্যক্রম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট। গত বুধবার মস্কোয় জ্বালানি বিষয়ক এক সম্মেলনে যোগ দিয়ে পুতিন দাবি করেছেন, কিছু সংগঠন নিজেদের উদ্দেশ্য হাসিলে গ্রেটাকে ব্যবহার করছে। তবে, নির্দিষ্ট করে কোন সংগঠনের নাম উল্লেখ করেননি তিনি। পুতিন বলেন, ‘আপনারা অখুশি হতে পারেন। কিন্তু, সত্যি বলতে, আমি গ্রেটা থানবার্গের ধারণার সঙ্গে একমত নই। কেউ তাকে বোঝায়নি যে, আধুনিক বিশ্ব জটিল ও অন্যরকম। আফ্রিকা বা এশিয়ার অনেক দেশের মানুষ সুইডেনের সমান পর্যায়ের সম্পদ নিয়ে বাঁচতে চায়। যাও, উন্নয়নশীল দেশগুলোকে বোঝাও, তারা কেন দরিদ্র অবস্থায় থাকছে, কেন সুইডেনের মতো নয়।’ তিনি বলেন, পরিবেশ ইস্যুতে যারা সোচ্চার, তাদের সমর্থন করা উচিত। কিন্তু, যখন কেউ ব্যক্তিগত লাভের জন্য শিশু-কিশোরদের ব্যবহার করে, এর শুধু নিন্দাই জানানো উচিত। রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমি নিশ্চিত, গ্রেটা খুবই উদার ও সচেতন মেয়ে। কিন্তু, শিশু-কিশোরদের চরম পরিস্থিতির মধ্যে না আনতে বড়দেরই সবকিছু করতে হবে।’ গত মাসে ১৬ বছর বয়সী কিশোরী গ্রেটা থানবার্গের ডাকে সাড়া দিয়ে দেড়শ’রও বেশি দেশের মানুষ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার দাবিতে পর পর দুই শুক্রবার রাস্তায় নেমে আসে।

এর আগে, গত বছর একই দাবিতে সুইডিশ পার্লামেন্টের সামনে টানা তিন সপ্তাহ একা একাই আন্দোলন করেন এ স্কুলছাত্রী।