স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় অধ্যায় শুরু

image

‘আমার উদ্ভাবন, আমার স্বপ্ন’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে শুরু হল জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা “স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ” এর দ্বিতীয় অধ্যায়। রোববার ১৫ সেপ্টেম্বর রাজধানীর আইসিটি টাওয়ারে অনুষ্ঠিত হয় এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর অধীনে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ (আইডিয়া) শীর্ষক প্রকল্প” এবং সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) এর আওতাধীন দেশের শীর্ষস্থানীয় তরুণদের প্ল্যাটফর্ম ‘ইয়াং বাংলা’ এর সহযোগিতায় এই উদ্যোগটি আয়োজিত হচ্ছে। এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য হল দেশের অগ্রগতি এবং উন্নয়নে অবদান রাখতে যাদের উদ্ভাবনী পরিকল্পনা আছে এমন তরুণ উদ্যোক্তা খুঁজে বের করা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, “বিশ্ব বর্তমানে তারুণ্যের সংকটে রয়েছে। আমরা সেখানে দারুণ এক অবস্থানে রয়েছি। আমাদের দেশের ৭ কোটির বেশি মানুষ বর্তমানে প্রাইমারি স্কুল থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে লেখাপড়া করছে। প্রতি বছর কর্মক্ষেত্রে নতুন করে যুক্ত হচ্ছে ২০ লাখ মানুষ। এখন আমাদের লক্ষ্য, তারুণ্যের শক্তিকে কিভাবে বাংলাদেশের সমৃদ্ধিতে ব্যবহার করতে পারব। কিন্তু এত মানুষ যদি শুধু চাকরী করে, তাহলে সরকারি বা বেসরকারি কোন উদ্যোগেই কর্মসংস্থান প্রদান করা সম্ভব হবে না।”

তিনি বলেন, বিল গেটস থেকে শুরু করে মার্ক জাকারবার্গ যার কথাই বলেন তাদের ইনোভেশনগুলো শিক্ষার্থী থাকা অবস্থায় এসেছে। আর সে কারণেই আইডিয়া প্রকল্প থেকে আমরা ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ এই থিম নিয়ে কাজ শুরু করেছি গত বছর থেকে। গত বার ২ হাজার ২০০টি আবেদন পেয়েছিলাম আমরা। এতগুলো স্বপ্ন। গতবারের সেই সাফল্য থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে এটি আমাদের দ্বিতীয় আয়োজন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন এর সদস্য প্রফেসর ড. মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, তারণ্যেই শক্তি। বাংলাদেশ সরকার ও আইসিটি মন্ত্রণালয় আছে তারণ্যের পাশে। তারণ্যকে নিয়েই সমৃদ্ধশালী হবে বাংলাদেশ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) এর সহোযোগী সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদ বলেন, “ইয়াং বাংলা দেশের তরুণদের জন্য কাজ করছে ২০১৪ সাল থেকে। এই প্লটাফর্মের মূল লক্ষ্য দেশের তরুণদের কর্মক্ষম করে তুলতে উৎসাহিত করা এবং দেশ গঠনে তাদের উদ্যোগগুলোকে অনুপ্রাণিত করা।”

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর নির্বাহী পরিচালক পার্থ প্রতিম দেব এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিয়া প্রকল্প এর পরিচালক (যুগ্ম-সচিব) সৈয়দ মজিবুল হক।

সারাদেশের শিক্ষার্থীরা অনলাইনে নিবন্ধনের মাধ্যমে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন। এছাড়া দেশের ১০০টির বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্থাপিত বুথের মাধ্যমেও রেজিস্ট্রেশন করা যাবে। ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ এর দ্বিতীয় অধ্যায়ের নিবন্ধন প্রক্রিয়াটি ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়। ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ এর দ্বিতীয় অধ্যায়ে অনলাইনে নিবন্ধনের জন্য ভিজিট করতে হবে www.s2s.startupbangladesh.gov.bd। এছাড়া নিবন্ধনের লিংকটি স্টার্টআপ বাংলাদেশ এর ওয়েবসাইটেও (www.startupbangladesh.gov.bd) পাওয়া যাবে।

এর আগে গত মে ২০১৯ এ ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’ এর প্রথম অধ্যায় সফলভাবে সম্পন্ন হয় যেখানে মোট ৩০টি স্টার্টআপ আইডিয়া প্রকল্পের অফিসিয়াল ‘সিলেকশন কমিটি’র মুখোমুখি হয়। সবশেষে বিজয়ী হিসেবে সেরা ১০টি স্টার্টআপকে ১০ লক্ষ টাকা করে সরাসরি অনুদান প্রদান করার পাশাপাশি বাকি ২০টি স্টার্টআপকে গ্রুমিং এর জন্য নির্বাচিত করা হয়।

চিকিৎসকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী উপহার দিচ্ছে ইন্টেগ্রো

image

অনলাইনে ইনফো-সরকার ৩য় পর্যায় প্রকল্পের স্টীয়ারিং কমিটির সভা

image

করোনা পরিস্থিতিতে ডিজিটাল মার্কেটিং-এ দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন

image

ফেসবুকের মে ২০২০ এর কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ডস এনফোর্সমেন্ট রিপোর্ট প্রকাশ

image

অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চালুর মাধ্যমে শহর-গ্রামের বৈষম্য দূর হবে

image

ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় ও এটুআই এর আয়োজনে শেষ হলো “অনলাইন লার্নিং সামিট-২০২০”

image

অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চালুর মাধ্যমে শহর-গ্রামের বৈষম্য দূর হবে: পলক

তথ্য ওযোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি পরবর্তী পৃথিবী

১৭ মে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস

image

শ্রমিকদের কোভিড-১৯ সম্পর্কে শিক্ষা ও পরামর্শ প্রদানের উদ্দেশ্যে শুরু হয়েছে ‘বর্ডারলেসডটক্লিনিক’

image