শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় বজলুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

image

শ্রদ্ধা আর ভালোসায় পালিত হল ‘সংবাদ’ সম্পাদক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রহমানের একাদশ মৃত্যুবার্ষিকী। এ উপলক্ষে ২৬ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকালে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন বজলুর রহমানের সহধর্মিণী ও সাবেক কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। ‘সংবাদ’ পরিবারের পক্ষ থেকে ব্যবস্থাপনা সম্পাদক কাশেম হুমায়ূন, ফটো সাংবাদিক সোহরাব আলম এবং কার্টুনিস্ট আবদুল কুদ্দুস পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এছাড়া বজলুর রহমান ফাউন্ডেশন, নকলা ফাউন্ডেশনসহ বজলুর রহমানের আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু ও শুভাকাক্সক্ষীরা বজলুর রহমানের কবরে পুষ্পস্তবক দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। কবরস্থানে সাংবাদিক বজলুর রহমানের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

প্রসঙ্গত, সাংবাদিক বজলুর রহমান ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন। প্রয়াত বজলুর রহমান ১৯৪১ সালের ৩ আগস্ট ময়মনসিংহ জেলার ফুলপুর থানার চরনিয়ামতপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে এমএ পাস করে ১৯৬১ সালে ‘দৈনিক সংবাদ’-এ সহসম্পাদক হিসেবে সাংবাদিকতা শুরু করেন তিনি। পরে ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এবং সম্পাদক হন। মহান মুক্তিযুদ্ধ, ৬২’র ছাত্র আন্দোলন, ৬৬ সালে ৬ দফা আন্দোলন, ৬৮-৬৯’র গণঅভ্যুত্থান, ৭৫-এ বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলন, নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছেন। ৭১-এ মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে বজলুর রহমানের সম্পাদনায় ‘মুক্তিযুদ্ধ’ নামে একটি পত্রিকা প্রকাশিত হত। সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ২০১২ সালে সরকার বজলুর রহমানকে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করেন।