জনগণের কল্যাণ নিশ্চিত হলে এসডিজি অর্জন সহজ হবে : স্পিকার

image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সংসদ সদস্যদের নিয়ে এসডিজি সেল গঠনের ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেছেন, জনগণের কল্যাণ নিশ্চিত হলে এসডিজি অর্জন সহজ হবে। মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) সংসদ ভবনের শপথ কক্ষে সংসদ সদস্যদের জন্য এসডিজি বাস্তবায়ন বিষয়ক ‘ব্রেইন স্টর্মিং সেসন’ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খানের সভাপতিতে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, ইউএনডিপির আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জী, ইউএনডিপির এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ফোকাল পয়েন্ট চার্লস স্যুভেল, ইউএনডিপির কলসালটেন্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি ও একসেস টু ইনফরমেশন প্রোগ্রামের রমিজ উদ্দিন। আলোচনায় অংশ নেন ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, সাবেক ডেপুটি স্পিকার সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আ ফ ম রুহুল হক, সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শামসুল হক টুকু, সরকারি হিসাব সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপি রুস্তম আলী ফরাজি এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ প্রমুখ।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, সংসদ সদস্যরা দেশের উন্নয়ন অগ্রাধিকার এবং বৈশ্বিক উন্নয়ন এজেন্ডাকে সামনে রেখে এসডিজি অর্জনে নিজ নির্বাচনী এলাকায় কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করবেন। আর সে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করবেন জনগণের সার্বিক কল্যাণ বিবেচনায় নিয়ে। স্পিকার বলেন, দেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়নে বর্তমান সরকার ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। যা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) অর্জনে সহায়ক ভূমিকা রাখছে। বাংলাদেশ সহ¯্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। সে ধারাবাহিকতায় ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জনেও বাংলাদেশ সফল হবে ।