ডাক্তার ও রোগীদের সুরক্ষায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ

image

করোনাভাইরাসজনিত স্বাস্থ্য ঝুঁকি মোকাবিলায় বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) তৈরি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ডাক্তার ও রোগীদের মধ্যে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্যের কাছে হস্তান্তর করেছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। ২১ মার্চ শনিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘বি ক্লিন’ নামের এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার গ্রহণ করেন ভিসি অধ্যাপক কনক কান্তি বড়–য়া। এ সময় মন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পসে জনসাধারণের হাত জীবাণুমুক্তকরণ কর্মসূচিরও উদ্বোধন করেন। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব প্রকৌশলী মো. আনোয়ার হোসেন, বিসিএসআইআরের চেয়ারম্যান মো. ফারুক আহমেদসহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং বিএসএমএমইউর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান এ সময় বলেন, আমাদের চিকিৎসকদের নিরাপত্তাসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষায় রোগীদের মধ্যে এগুলো বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। পর্যায়ক্রমে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ হাসপাতালে এ কার্যক্রম চলবে। এছাড়া চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও জয়াপুরহাটের হাসপাতালেও এ কার্যক্রম চলবে। তিনি আরও বলেন, একজন স্বেচ্ছাসেবক হাসপাতালের প্রবেশ পথে দাঁড়িয়ে সবার হাতে এ স্যানিটাইজার তুলে দেবেন। নিজে ও অন্যকে করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করবেন।

বিনামূল্যে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিচ্ছে বিসিএসআইআর: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) আন্তর্জাতিক মানের রেফারেন্স ল্যাবরেটরি ডিআরআইসিএম করোনাভাইরাসজনিত স্বাস্থ্য ঝুঁকি মোকাবিলায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রস্তুত করেছে। দেশে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি প্রবল হওয়ায় বাজারে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের দুষ্প্রাপ্যতা সৃষ্টি হওয়ায় ডিআরআইসিএম এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তারা বিনামূল্যে এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করবে। আইইডিসিআরসহ দেশের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সকলের হাত জীবাণু রাখা এ ভাইরাস প্রতিরোধের একটি প্রধান উপায়। তাই ‘বি ক্লিন’ নামের এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার ইতোমধ্যে কেবিনেট ডিভিশনসহ বিভিন্ন সংস্থায় বিতরণ করা হয়েছে। এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিনামূল্যে সাধারণ জনগণের হাত জীবাণুমুক্ত করার কাজে ব্যবহার হবে বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে সংস্থাটি। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদনের এই কার্যক্রম গত ১৯ মার্চ বৃহস্পতিবার সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বিসিএসআইআরের অন্যান্য ল্যাবগুলোকেও এই উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান।

প্রাথমিকভাবে স্বেচ্ছাসেবীর মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসা সবার হাত জীবাণুমুক্ত করতে এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার সরবারহ করা হবে। ডিআরআইসিএম সূত্র জানায়, হাত জীবাণুমুক্ত ছাড়াও হাসপাতাল, অফিস-আদালত, ঘর-বাড়ি জীবাণুমুক্ত রাখতে স্বল্পমূল্যের জীবাণুনাশক তৈরি শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এটিও জনস্বার্থে বিনামূল্যে বিতরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দেশের মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় এ উদ্যোগকে মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে ঘোষণা করেছেন উদ্যোক্তারা।