নদীর পানি আরও কমছে

image

দেশের বন্যা পরস্থিতিরি আরও উন্নতি হচ্ছে, বেশিরভাগ নদীর পানি কমেছে। আজ রোববার ৮টি নদীর পানি ১১টি পয়েন্টে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহতি হচ্ছে। শনিবার (৮ আগস্ট) ১২টি নদীর ১৬টি পয়েন্টে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহতি হয়।

বন্যা পূর্বাভাস ও সর্তকীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান জানান, ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা নদীর পানি কমছে, যা আগামী ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। একইভাবে গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানিও কমছে। যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। এদিকে উত্তর পূর্বাঞ্চলরে ওপরের দিকে মেঘনা অববাহিকার প্রধান নদ নদীগুলোর পানিও কমছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। একইভাবে ঢাকার আশপাশের নদীগুলোর পানিও কমছে। এই পরিস্থিতিও আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

পানি কমতে থাকা জলোগুলোর মধ্যে আগামী ২৪ ঘণ্টায় সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইল, নাটোর, ফরিদপুর, মুন্সীগঞ্জ, মাদারীপুর, চাঁদপুর, রাজবাড়ী, শরীয়তপুর, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্যা পরিস্থিতিরি উন্নতি হতে পারে। একইভাবে আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা সিটি করপোরশেনরে আশপাশরে নিম্নাঞ্চলরে বন্যা পরিস্থিতি উন্নতি হতে পারে।

গতকাল শনিবার যমুনা নদীর একটি পয়ন্টেরে পানি বিপৎসীমার ওপরে থাকলেও আজ তা নেমে গেছে। এদিকে আজ গুড় নদীর সিংড়া পয়েন্টে ৫২ থেকে কমে ৪৩, আত্রাই নদীর বাঘাবাড়ি পয়েন্টে ৭ থেকে বেড়ে ২৭, ধলেশ্বরী নদীর এলাসিন পয়েন্টে ৪৮ থেকে কমে ৩৬ এবং জাগির পয়েন্টে ৪৮ থেেক কমে ৩৭ সন্টেমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহতি হচ্ছে।

আজ রোববার উত্তর পূর্বাঞ্চলে পানির মতো কমতে শুরু করেছে ঢাকার আশপাশের নদীগুলোর পানিও। এর মধ্যে বালু নদীর ডেমরা পয়েন্টে এবং লাক্ষ্যা নদীর নারায়ণগঞ্জ পয়েন্টের পানি গতকাল বিপৎসীমার ওপরে থাকলেও আজ তা নেেম গেছে। অন্যদিকে তুরাগ নদীর পানি মরিপুর পয়েন্ট ৪১ থেেক কমে ৩২ এবং টঙ্গী খালরে টঙ্গী পয়েন্ট পানি ৩৭ থেকে কমে ৩২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহতি হচ্ছে।

এদিকে মানিকগঞ্জের কালিগঙ্গা নদীর তরাঘাট পয়েন্টে ৪৬ থেকে ৩৬, বংশী নদীর নায়ারহাট পয়েন্টে ৯ থেকে কমে ৪ সন্টেমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহতি হচ্ছে।

তবে এখনও পদ্মা নদীর পানি কমলওে কিছু পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ওপরেই আছে। এই নদীর গোয়ালন্দ পয়েন্টে এখন ৩৮ থেকে কমে ২৯, ভাগ্যকুল পয়েন্ট ২০ থেেক কমে ১১ এবং মাওয়া পয়েন্টে ২২ থেেক কমে ৮ সেন্টিমিটার বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহতি হচ্ছে।

যদিও নদীর পানি এখন কমছে কন্তিু এই মাসরে মাঝামাঝি থেকে আবারও পানি বাড়ার শঙ্কা প্রকাশ করেছে আবহাওয়া অধিদফতর ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র। ফলে মাসরে শেষে আবারও বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে পূর্বাভাস দেয়েছে সংষ্টিরা।