সংসদে শামিম কবিরসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব

image

একাদশ জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশন চলবে আগামী ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) প্রথম দিনের অধিবেশনে ক্রিকেটের প্রথম অধিনায়ক আনোয়ারুল কবির শামিম কবিরসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়েছে। অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার চলতি অধিবেশনের সভাপতিমণ্ডলী মনোনয়ন দেন। স্পিকার বা ডেপুটি স্পিকারের অনুপস্থিতিতে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুস শহীদ, এনামুল হক, মৃণাল কান্তি দাস, কাজী ফিরোজ রশীদ ও জয়া সেনগুপ্তা কার্যক্রম পরিচালনা করবেন। পরে স্পিকার বিরোধীদলীয় নেতা জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম, মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা ও সাবেক সংসদ সদস্য ন্যাপ সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ, সাবেক সংসদ সদস্য খালেদা হাবিবের নামে শোকপ্রসতাব গৃহীত হয়।

এছাড়া আনোয়ারা বেগম, জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রথম অধিনায়ক আনোয়ারুল কবির শামিম, ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, ভারতের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী অরুণ জেটলি, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আ ন ম শফিকুল হক, মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হানিফ, কথাসাহিত্যিক রিজিয়া রহমান, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর নুরুল ইসলাম, সমাজসেবী ঝর্ণাধারা চৌধুরী ও ভাষাসংগ্রামী খালেকুল আল আজাদের মৃত্যুতে শোকপ্রস্তাব উত্থাপন করেন।

দেশের বিভিন্ন স্থানে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত, যুক্তরাষ্ট্রের ওহেইয়ো ও টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে বন্দুকধারীদের হামলায়, সুদানে বন্যায় এবং দেশ-বিদেশের বিভিন্ন স্থানে দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণেও শোক প্রকাশ করা হয় সংসদে। চলমান সংসদের সদস্য এরশাদের মৃত্যুতে রেওয়াজ অনুযায়ী অধিবেশনে তার জীবন ও কাজের ওপর আলোচনা করা হয়। পরে অধিবেশন মুলতবি করা হয়।

অধিবেশন শুরুর আগে এর মেয়াদ নিয়ে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকে বসে কার্য-উপদেষ্টা কমিটি। সভায় একাদশ জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশন আগামী ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। কমিটির সদস্য রওশন এরশাদ, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ওবায়দুল কাদের, হাসানুল হক ইনু, মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, আনিসুল হক, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, নূর-ই-আলম চৌধুরী এবং আবদুস সাত্তার ভুঞা সভায় অংশগ্রহণ করেন। সভায় জানানো হয়, একাদশ জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশনে সংসদে উত্থাপণের জন্য ৩টি সরকারি বিলের নোটিশ পাওয়া গেছে। পূর্বে অনিষ্পন্ন ২টি সরকারি বিল পাশের জন্য কমিটিতে পরীক্ষাধীন রয়েছে। বেসরকারি সদস্যদের কাছ থেকে ১টি বিলের নোটিশ পাওয়া গেছে। পূর্বে প্রাপ্ত ও অনিষ্পন্ন ১টি বেসরকারি বিল রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর জন্য ৭০টি ও মন্ত্রীর জন্য প্রশ্ন ১ হাজার ৫৫৩টিসহ প্রাপ্ত মোট প্রশ্নের সংখ্যা ১ হাজার ৬২৩টি সিদ্ধান্ত প্রস্তাব (বিধি ১৩১) ১০৯টি, মুলতবি প্রস্তাবের সংখ্যা (বিধি ৬২) ১৫টি ও মনোযোগ আকর্ষণের নোটিশ (বিধি ৭১) ৬০টি পাওয়া গেছে।